خبرگزاری شبستان

جمعه ۳۰ فروردین ۱۳۹۸

الجمعة ١٤ شعبان ١٤٤٠

Friday, April 19, 2019

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Thursday, February 12, 2015 নির্বাচিত সংবাদ : 20029

ইসলামী বিপ্লবের সাফল্যকে প্রশ্নবিদ্ধ করে শিয়া-সুন্নি বিভেদ সৃষ্টির পায়তারা!!
মাহদাভিয়াত বিভাগ: ইমাম খোমেনী (রহ.) শিয়া ও সুন্নিকে পরস্পর ভাই হিসাবে অভিহিত করেছেন এবং সংবিধানে তাদের সমান অধিকার দিয়েছেন। অনুরূপভাবে বর্তমান রাহবার আয়াতুল্লাহ খামেনেয়ীও শিয়া ও সুন্নিদের মধ্যে ঐক্যের বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে ওহাবিদের চক্রান্তকে নস্যাত করেছেন।

ইসলামী বিপ্লবের সাফল্যকে প্রশ্নবিদ্ধ করে শিয়া-সুন্নি বিভেদ সৃষ্টির পায়তারা!!

 

মাহদাভিয়াত বিভাগ: ইমাম খোমেনী (রহ.) শিয়া ও সুন্নিকে পরস্পর ভাই হিসাবে অভিহিত করেছেন এবং সংবিধানে তাদের সমান অধিকার দিয়েছেন। অনুরূপভাবে বর্তমান রাহবার আয়াতুল্লাহ খামেনেয়ীও শিয়া ও সুন্নিদের মধ্যে ঐক্যের বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে ওহাবিদের চক্রান্তকে নস্যাত করেছেন। 

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইরানের সাবেক সুন্নি জুম্মার খতিব মাওলানা মুহাম্মাদ শারীফ জাহেদী বলেন: মহান আল্লাহ প্রতিটি যুগে একজন করে মুজাদ্দিদ প্রেরণ করেন এবং তার মাধ্যমে সত্যকে প্রতিষ্ঠা করেন এবং মজলুমের সাহায্য করেন। আমাদের দেশ ইরানেও মহান আল্লাহ ইমাম খোমেনীকে পাঠিয়ে ইসলামকে রক্ষা করেছেন এবং তিনি জুলুমের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে বিজয় অর্জন করেছেন।

তিনি বলেন: আমাদের দেশে একটি দীর্ঘ সময় ধরে তাগুতি শাসন ছিল। যারা ইসলামের দুশমনদের বিশেষ করে আমেরিকার সহায়তায় ইসলাম ও আলেম সমাজের চরম ক্ষতি করেছিল।

মাওলানা মুহাম্মাদ শারীফ জাহেদী বলেন: প্রায় ২০০ বছর পূর্বে ইসলামের প্রতি নতুন করে যে জুলুমের আবির্ভাব হয় তা হচ্ছে ওহাবি নামের একটি ইসলামী দলেল উদ্ভব। পাশ্চাত্যের হাতে তৈরি এই জঙ্গিবাদী ওহাবি চক্র ইসলামের চরম ক্ষতি সাধন করে।

ইরানের মিনাব প্রদেশের আলে ইয়াসিন কোরআন ইনিস্টটিউটের প্রধান বলেন: ওহাবি চক্র শিয়াদেরকে ক্ষতি করার জন্য সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। তারা শিয়াদের ক্ষতি করার জন্য প্রচুর পরিমাণ অর্থও খরচ করে।

তিনি বলেন: ইরানের স্বৈরাচারী রেজা শাহের শাসনামলে শিয়াদের অনেক ক্ষতি করা হয় এবং বিশেষ করে তারা আলেমদের উপর অনেক জুলুম করে। আর ওহাবিরা তা খুবই পছন্দ করত। রেজা শাহ পাহলাভী ওহাবি ও তাকফিরিদের সাথে ভাল সম্পর্ক রাখত। আর যখন ইরানের ইসলামী বিপ্লব বিজয় হল তখন এই বিপ্লবের উপর ওহাবিদের চরম ক্ষোভ তৈরি হল।

মাওলানা মুহাম্মাদ শারীফ জাহেদী বলেন: রেজা শাহ এমনকি পবিত্র কোরআন ও ইসলামের বিরোধীতা করত, এ সময় ইমাম খোমেনী (রহ.) তার বিরুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন কিন্তু কোন ওহাবি ইসলাম রক্ষা করার এ সংগ্রামে ইমাম খোমিনীর সহযোগিতা করে নি।

তিনি বলেন: যারা নিজেদেরকে নবীর সুন্নতের অনুসারী বলে দাবি করত তারা ইসলামী বিপ্লবের পর ইমাম খোমিনীর বিরুদ্ধে লেখালেখি শুরু করে। এবং বর্তমানে তারা ইসলামের নামে ইরাকে, সিরিয়ায়, বাহরাইন ও লেবাননে মুসলমানরেদকে হত্যা করছে এবং এমনকি শিশুদের উপরও চালাচ্ছে নির্মম নির্যাতন ও হত্যা।

সাবেক সুন্নি জুম্মার খতিব মাওলানা মুহাম্মাদ শারীফ জাহেদী বলেন: ওহাবিরা ইসরামী বিপ্লব বিজয়ের পর থেকে শিয়া মাজহাবের বিরুদ্ধে নানা ধরনের ফতোয়া জারি করা শুরু করে। উদাহরণস্বরূপ: তারা ইরানের সুন্নি অধ্যুষিত সিসতান ও বেলুচিসতানে এমন কিছু ফতোয়া দিয়েছে যাতে বলা হয়েছে: শিয়াদের স্কুলে পড়াশুনা করা যাবে না, ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের টেলিভিশন দেখা হারাম, রেডিও শোনা হারাম এমনকি শিয়াদের সাথে বিবাহ করাও হারাম। আর এ সকল ফতোয়ার মাধ্যমে শিয়া ও সুন্নিদের মধ্যে ফাটল ধরানোর পায়তারা চালাচ্ছে।

মাওলানা মুহাম্মাদ শারীফ জাহেদী বলেন: ইমাম খোমিনী(রহ.) শিয়া ও সুন্নিকে পরস্পর ভাই হিসাবে উল্লেখ করেছেন এবং সংবিধানে তাদের সমান অধিকার দিয়েছেন। অনুরূপভাবে বর্তমান রাহবার আয়াতুল্লাহ খামেনেয়ীও শিয়া ও সুন্নিদের মধ্যে ঐক্যের বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে ওহাবিদের চক্রান্তকে নস্যাত করেছেন।

তিনি বলেন: ওহাবিরা নিজেদরকে ইসলামের প্রতিনিধি হিসাবে ইরানের বিরুদ্ধে চ্যানেল খুলেছে। কিন্তু সচেতন মুসলামনরা বুঝতে পারে যে ইরানই সঠিক পথে রয়েছে আর কুসংস্কারাচ্ছন্ন ওহাবিরাই পথভ্রষ্ট।

মাওলানা মুহাম্মাদ শারীফ জাহেদী বলেন: তারা ইসলামী বিপ্লবের অর্জনকে ছোট করে দেখার চেষ্টা করছে এবং বলছে যে, এই বিপ্লবে সুন্নিদের কোন লাভ হয় নি শুধুমাত্র শিয়ারাই লাভবান হয়েছে। অথচ সকল সুন্নি আলেমরা স্বীকার করেন যে, ইসলামী বিপ্লব তাদের অনেক খেদমত করেছে।

সাবেক সুন্নি জুম্মার খতিব মাওলানা মুহাম্মাদ শারীফ জাহেদী বলেন: ইমাম খোমিনী(রহ.) আমেরিকার ইসলাম বলে মুসলমানদেরকে যে সতর্ক করে দিয়েছিলেন তা হচ্ছে এই ওহাবি ও তাকফিরি চক্র। ঐ সময় হয়ত মানুষ জানতই না যে ওহাবি ও তাকফিরি কারা।

তিনি বলেন: আমাদেরকে আমেরিকার ইসলামের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। এবং পশ্চিমারা ইসলাম আতংকের নামে যে ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে এক সময় তা যেন মুসলমানদের মধ্যে শিকড় গেড়ে না বসে।

 

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য