خبرگزاری شبستان

شنبه ۱ اردیبهشت ۱۳۹۷

السبت ٦ شعبان ١٤٣٩

Saturday, April 21, 2018

বিজ্ঞাপন হার

কেন ইমাম হুসাইনকে হেদায়েতের আলো এবং মুক্তির তরী বলা হয়?

মাহদাভিয়াত বিভাগ: চতুর্থ হিজরির তৃতীয় শা’বান মানবজাতি ও বিশেষ করে, ইসলামের ইতিহাসের এক অনন্য ও অফুরন্ত খুশির দিন। কারণ, এই দিনে জন্ম নিয়েছিলেন বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.)’র প্রাণপ্রিয় দ্বিতীয় নাতি তথা বেহেশতী নারীদের নেত্রী হযরত ফাতিমা (সা.) ও বিশ্বাসীদের নেতা তথা আমীরুল মুমিনিন হযরত আলী (আ.)’র সুযোগ্য দ্বিতীয় পুত্র এবং ইসলামের চরম দূর্দিনের ত্রাণকর্তা ও শহীদদের নেতা হযরত ইমাম হুসাইন (আ.)।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Saturday, February 25, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 25920

হযরত ফাতেমা যাহরা (আ.) নারী জাতির চিরন্তন জীবনাদর্শ
মায়ারেফ বিভাগ: ইরানের লোরেস্তান প্রদেশের প্রদেশের প্রধান জুমার নামাযের খতিব হযরত আয়াতুল্লাহ সাইয়েদ আহমাদ মীর এমাদি বলেছেন যে, নবী নন্দিনী হযরত ফাতেমা যাহরা (আ.) নারী জাতির চিরন্তন জীবনাদর্শ; তাই আজকের নারী সমাজ মহীয়সী ফাতেমার (আ.) জীবনাদর্শ অনুসরণের মাধ্যমে পরিত্রাণ পেতে পারে।

হযরত ফাতেমা যাহরা (আ.) নারী জাতির চিরন্তন জীবনাদর্শ

 

মায়ারেফ বিভাগ: ইরানের লোরেস্তান প্রদেশের প্রদেশের প্রধান জুমার নামাযের খতিব হযরত আয়াতুল্লাহ সাইয়েদ আহমাদ মীর এমাদি বলেছেন যে, নবী নন্দিনী হযরত ফাতেমা যাহরা (আ.) নারী জাতির চিরন্তন জীবনাদর্শ; তাই আজকের নারী সমাজ মহীয়সী ফাতেমার (আ.) জীবনাদর্শ অনুসরণের মাধ্যমে পরিত্রাণ পেতে পারে।

 

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: হযরত আয়াতুল্লাহ সাইয়েদ আহমাদ মীর এমাদি আজ শুক্রবার ২৪শে ফেব্রুয়ারী জুমার খুতবাতে আগামী ৩রা জামাদিউস সানী মোতাবেক ২রা মার্চ বৃহস্পতিবার নবী নন্দিনী হযরত ফাতেমা যাহরার (আ.) শাহাদত দিবসের কথা উল্লেখ করে বলেন: রাসূলের (সা.) ওফাতের পর তার একমাত্র কন্যা ফাতেমা যাহরা (আ.) অত্যন্ত শোকার্ত ও নিসঙ্গ অবস্থাতে দিন অতিবাহিত করেন। কেননা রাসূলের (সা.) হাদীস অনুযায়ী ফাতেমা যাহরা ছিলেন তার অস্তিত্বের অংশ বিশেষ। যেমনভাবে রাসূলের (সা.) নিকট ফাতেমা যাহরা ছিলেন সবচেয়ে প্রিয়, তেমনভাবে ফাতেমার নিকটও রাসূল ছিলেন সবচেয়ে প্রিয়ভাজন। এ কারণে রাসূলের ওফাত তার নিকট ছিল সবচেয়ে কষ্টের ও অসহনীয়। তাছাড়া রাসূলের ওফাতের পর মুসলিম উম্মাহর মধ্যে একটি বিভ্রান্ত গোষ্ঠী তার সাথে অসৌজন্য আচরণ এ কষ্টকে আরও বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়।

তিনি আরও বলেন: রাসূলের ওফাতের পর যখন একদল মুসলমান আলী ইবনে আবি তালিবের নিকট থেকে খেলাফত ছিনিয়ে নেয়, তখন নবী নন্দিনী এ বিভ্রান্ত গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সর্বশক্তি নিয়োগ করে প্রতিবাদ ও সংগ্রামে লিপ্ত হন। পরিণতিতে নানাবিধ অবিচার সহ্য করে এ পৃথিবী থেকে বেদনাভরা মন নিয়ে বিদায় নেন। এ কারণে তাকে ইমামত ও বেলায়েতের পক্ষে সর্বপ্রথম শহীদ হিসেবে অভিহিত করা হয়।

612460

 

 

 

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য