خبرگزاری شبستان

سه شنبه ۲۱ آذر ۱۳۹۶

الثلاثاء ٢٤ ربيع الأوّل ١٤٣٩

Tuesday, December 12, 2017

বিজ্ঞাপন হার

ইমাম মাহদীর(আ.) জ্ঞানের প্রকৃতি ও উতস

মাহদাবিয়াত বিভাগ: ইমাম জাফর সাদিক (আ.) বলেছেন: জ্ঞান-বিজ্ঞানের ২৭টি অক্ষর রয়েছে নবীগণ যা এনেছেন তা হচ্ছে মাত্র ২টি অক্ষর এবং জনগণও এই দুই অক্ষরের বেশী কিছু জানে না। যখন আমাদের কায়েম কিয়াম করবে বাকি ২৫টি অক্ষর বের করবেন এবং মানুষের মধ্যে তা প্রচার করবেন। অতঃপর ওই দু’অক্ষরকেও তার সাথে যোগ করে মানুষের মাঝে প্রচার করবেন।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Wednesday, March 01, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 25959

শবে কদরের ন্যায় ফাতেমা যাহরার (আ.) ফজিলত মানুষের অজ্ঞাত: গবেষক
মায়ারেফ বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও গবেষক হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন মির বাকেরী বলেছেন যে, যেমনভাবে শবে কদরের ফজিলত ও মর্যাদা মানুষের পক্ষে অনুধাবন করা সম্ভব নয়, তেমনভাবে নবী নন্দিনী ফাতেমা যাহরার (আ.) ফজিলত অনুধাবন কারও পক্ষে সম্ভব নয়।

শবে কদরের ন্যায় ফাতেমা যাহরার (আ.) ফজিলত মানুষের অজ্ঞাত: গবেষক

 

মায়ারেফ বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও গবেষক হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন মির বাকেরী বলেছেন যে, যেমনভাবে শবে কদরের ফজিলত ও মর্যাদা মানুষের পক্ষে অনুধাবন করা সম্ভব নয়, তেমনভাবে নবী নন্দিনী ফাতেমা যাহরার (আ.) ফজিলত অনুধাবন কারও পক্ষে সম্ভব নয়।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইরানের বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও গবেষক হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন মির বাকেরী গতকাল এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে বলেন: হাদীসে বর্ণিত হয়েছে যে, আল্লাহ তায়ালা ফাতেমার অসন্তুষ্টিতে অসন্তুষ্ট এবং ফাতেমার রাগন্বিতে রাগন্বিত হন। এ হাদীসটির মাধ্যমে নবী নন্দিনীর সুউচ্চ সম্মান, মর্যাদা এবং ফজিলতের বিষয়টি আমরা কিছুটা হলেও অনুধাবন করতে পারি। এখানে দেখার বিষয় হচ্ছে কখন একজন ব্যক্তিত্বের সন্তুষ্টি কিংবা অসন্তুষ্টিতে স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা সন্তুষ্ট কিংবা অসন্তুষ্ট হন। যখন কেউ আল্লাহর সবচেয়ে নিকটতম ও সান্নিধ্যপ্রাপ্ত হয়, তখনই কেবল এমন অবস্থানে উন্নীত হতে পারে।

তিনি বলেন: রাসূল (সা.) থেকে বর্ণিত“ফাতেমা আমার অস্তিত্বের অংশবিশেষ। যা কিছু তাকে কষ্ট দেয় তা আমাকেও কষ্ট দেয়। আর যা কিছূ তাকে পীড়িত করে, তা আমাকেও পীড়িত করে।”

নিঃসন্দেহে পিতা ও সন্তানের মধ্যকার পারস্পরিক ভক্তি ও ভালবাসা কখনও এরূপ অবস্থার ব্যাখ্যা দিতে পারে না। কেননা, মহানবী (সাঃ) “রাসূলুল্লাহ” হিসেবে আল্লাহ্র ইচ্ছা ব্যতীত অন্য কোন ইচ্ছা করতে পারেন না। আর ফাতেমা যাহ্রা (আঃ)-এর ইচ্ছার সাথে আল্লাহ্ ও তার রাসূল (সাঃ)-এর ইচ্ছার সম্পৃক্ততা, এটারই প্রমাণ বহন করে যে, তাঁর (ফাতেমার) আশা-আকাংখা ও ইচ্ছা কেবল মহান আল্লাহর শ্বাশ্বত ইচ্ছাতে পরিসমাপ্ত ঘটে।

613902

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য