خبرگزاری شبستان

پنج شنبه ۳ فروردین ۱۳۹۶

الخميس ٢٥ جمادى الثانية ١٤٣٨

Thursday, March 23, 2017

বিজ্ঞাপন হার

ইমাম মাহদীর আবির্ভাবের মাধ্যমে আমাদের পরিস্থিতি উন্নতি হবে

মাহদাভিয়াত বিভাগ: নববর্ষের দোয়াতে যে বলা হয় হে আল্লাহ! আমাদের অবস্থাতে উত্তম অবস্থায় পরিবর্তণ করুন। এটার অর্থ হচ্ছে ইমাম মাহদীর আবির্ভাবের মাধ্যমে আমাদের পরিস্থিতিকে উন্নত করুন।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Monday, March 06, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 25998

শত্রুদের মোকাবেলায় সদা সুদৃঢ় থাকা জরুরী: রাহবার
রাজনীতি বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা ও ইসলামি বিপ্লবের রাহবার হযরত আয়াতুল্লাহ আল উযমা সাইয়েদ আলী খামেনেয়ী বলেছেন যে, ১৯৭৮ সালে ইমাম খোমেনীর নেতৃত্বে ইরানি জাতি ইসলামি বিপ্লব প্রতিষ্ঠা করার পর থেকে যখনই আমরা শত্রুদের মোকাবেলায় কঠোরতা ও দৃঢ়তা প্রদর্শন করেছি, তখনই তারা পিছপা হতে বাধ্য হয়েছে। কিন্তু যখনই নমনিয়তা প্রদর্শন করেছি, তখনই তারা আমাদের উপর চেপে বসার অপচেষ্টা করেছে।

শত্রুদের মোকাবেলায় সদা সুদৃঢ় থাকা জরুরী: রাহবার

 

রাজনীতি বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা ও ইসলামি বিপ্লবের রাহবার হযরত আয়াতুল্লাহ আল উযমা সাইয়েদ আলী খামেনেয়ী বলেছেন যে, ১৯৭৮ সালে ইমাম খোমেনীর নেতৃত্বে ইরানি জাতি ইসলামি বিপ্লব প্রতিষ্ঠা করার পর থেকে যখনই আমরা শত্রুদের মোকাবেলায় কঠোরতা ও দৃঢ়তা প্রদর্শন করেছি, তখনই তারা পিছপা হতে বাধ্য হয়েছে। কিন্তু যখনই নমনিয়তা প্রদর্শন করেছি, তখনই তারা আমাদের উপর চেপে বসার অপচেষ্টা করেছে।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: হযরত আয়াতুল্লাহ আল উযমা সাইয়েদ আলী খামেনেয়ী আজ (সোমবার) ইরানের প্রতিরক্ষা যুদ্ধের ক্ষেত্রসমূহ পরিদর্শন তদারকি কমিটির সদস্যদের সাথে সাক্ষাতকালে বলেন: যদি আমরা শত্রুদের মোকাবেলা করতে চাই, তবে অবস্যই জাতীয় সক্ষমতা প্রদর্শন করতে হবে। আর তখনই শত্রুরা আমাদের বিরুদ্ধে কোন ধরনের আগ্রাসন চালানোর চিন্তাও করতে পারবে না।

তিনি ১৯৮০ সালের দিক ইরাকের সাবেক স্বৈরশাসক সাদ্দামের সময় ইরানের ওপর চাপিয়ে দেয়া আট বছরের যুদ্ধের কথা উল্লেখ করে বলেন, শত্রুরা তখন ইরানের ওপর যুদ্ধ চাপিয়ে দেয়ার সাহস পেয়েছিল কারণ তখন তারা ইরানের দুর্বলতার সুযোগ নিয়েছিল।

সর্বোচ্চ নেতা বলেন, “আপনারা যদি শত্রুকে আগ্রাসন চালানোর বিষয়ে হতাশ করতে চান তাহলে কখনো দুর্বলতা দেখাবেন না বরং আপনাদের শক্তি দেখিয়ে দিন।” এ সময় তিনি আবারো ইরানের ওপর শত্রুদের সাংস্কৃতিক আগ্রাসনের প্রচেষ্টা সম্পর্কে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। সর্বোচ্চ নেতা বলেন, “ইরানি জাতির সংস্কৃতি কীভাবে বদলে দেয়া যায় সে বিষয়ে শত্রুদের গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলো ষড়যন্ত্র করছে।”

হযরত আয়াতুল্লাহ আল উযমা সাইয়েদ আলী খামেনেয়ী আরও বলেন: সামরিক আগ্রাসনের চেয়ে সাংস্কৃতিক আগ্রাসন অনেক বেশি ভয়ংকর বলেও উল্লেখ করেন সর্বোচ্চ নেতা।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য