خبرگزاری شبستان

سه شنبه ۳۱ مرداد ۱۳۹۶

الثلاثاء ٣٠ ذو القعدة ١٤٣٨

Tuesday, August 22, 2017

বিজ্ঞাপন হার

যাদের প্রশংসা করলেন বাশার আসাদ

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ রাজধানী দামেস্কে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সমাবেশে শত্রুদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে সহযোগিতার জন্য বিভিন্ন দেশ ও ব্যক্তিত্বের প্রশংসা করেছেন।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Tuesday, April 04, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 26169

এবার জম্মু থেকে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিতাড়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত
স্পেশাল ডেস্ক: গত ৫/৭ বছর ধরে ভারতের জম্মুসহ কয়েকটি শহরে বসবাসকারী রোহিঙ্গা মুসলিমদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর প্রস্তুতি নিয়েছে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার। ওই শরণার্থীদের গ্রেফতার করে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হবে।

এবার জম্মু থেকে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিতাড়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত

স্পেশাল ডেস্ক: গত ৫/৭ বছর ধরে ভারতের জম্মুসহ কয়েকটি শহরে বসবাসকারী রোহিঙ্গা মুসলিমদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর প্রস্তুতি নিয়েছে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার। ওই শরণার্থীদের গ্রেফতার করে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হবে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সিনিয়র কর্মকর্তা সূত্রে প্রকাশ, ফরেনার্স অ্যাক্ট অনুসারে রোহিঙ্গাদের চিহ্নিত করে তাদের ফেরত পাঠানো হবে। বৌদ্ধ অধ্যুষিত মিয়ানমারে চলমান সহিংসতায় সেখান থেকে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ৪০ হাজার শরণার্থী ভারতে আশ্রয় নিয়েছে।

কেবলমাত্র জম্মুতেই ৫,৫০০ থেকে ৫,৭০০ জন রোহিঙ্গা শরণার্থী বাস করছেন। কিন্তু সরকারি মতে সঠিকভাবে গণনা করলে ওই সংখ্যা ১০/১১ হাজার পর্যন্ত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব রাজীব মহর্ষির সভাপতিত্বে এক বৈঠকে ভারতে অবৈধভাবে বাস করা রোহিঙ্গা মুসলিমদের চিহ্নিতকরণ, গ্রেফতারি এবং তাদের দেশের বাইরে পাঠানো সংক্রান্ত কৌশল নিয়ে আলোচনা হয়। ওই বৈঠকে জম্মু-কাশ্মিরের মুখ্যসচিব, পুলিশের মহানির্দেশক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জম্মু-কাশ্মিরে যুগ্মসচিব হিসেবে কাজ করা কর্মকর্তা, বিএসএফ এবং গোয়েন্দা বিভাগের সিনিয়র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।  

অন্যদিকে, জাতিসঙ্ঘের মানবাধিকার সংস্থার পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ভারতে বর্তমানে ১৪ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম শরণার্থী বাস করছেন। কেন্দ্রীয় সরকার অবশ্য জাতিসংঘের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের যে শরণার্থী আখ্যা দেয়া হয়েছে তার পক্ষপাতী নয়। বরং ভারতে রোহিঙ্গাদের অবৈধ অনুপ্রবেশকারী হিসবেই মনে করছে সরকার। এ অবস্থায় রোহিঙ্গাদের হেফাজতে নিতে, গ্রেফতার করে সাজা দিতে  এবং তাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর অধিকার রয়েছে বলে সরকার মনে করছে।

প্রসঙ্গত, ভারতে বাস করা রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে কোনো সন্দেহজনক কাজকর্ম করা বা সন্ত্রাসী ঘটনার অভিযোগ ওঠেনি বা এসব ঘটনায় কাউকে গ্রেফতারও করা হয়নি।#

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য