خبرگزاری شبستان

یکشنبه ۲۱ مهر ۱۳۹۸

الأحد ١٤ صفر ١٤٤١

Sunday, October 13, 2019

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Thursday, May 4, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 26424

রোহিঙ্গা বিষয়ে মানবাধিকার পরিষদের তদন্ত কার্যক্রম মেনে নেব না: সু চি
মিয়ানমারের ফার্স্ট স্টেট কাউন্সেলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী অং সান সু চি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ফেদেরিকা মোগেরিনি

রোহিঙ্গা বিষয়ে মানবাধিকার পরিষদের তদন্ত কার্যক্রম মেনে নেব না: সু চি

মিয়ানমারের ফার্স্ট স্টেট কাউন্সেলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী অং সান সু চি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ফেদেরিকা মোগেরিনি

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনীর হত্যা, যৌন সহিংসতা এবং নির্যাতন বিষয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ তদন্ত চালানোর যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা প্রত্যাখান করেছেন মিয়ানমারের ফার্স্ট স্টেট কাউন্সেলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী অং সান সু চি।

ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ফেডেরিকা মোগেরিনির সাথে এক যৌথ সংলাপ সম্মেলনে সু চি বলেন, গত মার্চে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নির্যাতন বিষয়ে যে খসড়া প্রস্তব পাস করেছিল তার সঙ্গে তিনি একমত নন। ইউরোপীয় ইউনিয়ন এ প্রস্তাব উত্থাপন করেছিল এবং সর্বসম্মতভাবে তা গ্রহণ করেছে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক শীর্ষ সংস্থা।

খসড়া প্রস্তাবের আওতায় মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে হত্যা, ধর্ষণ এবং নির্যাতন তদন্তে ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন পাঠাতে জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ক শীর্ষ সংস্থা সম্মত হয়েছিল। এ কাজে সহযোগিতা করতে খসড়া প্রস্তাবে মিয়ানমার সরকারকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

গতকাল সু চি বলেন, আমরা জাতিসংঘের ওই খসড়া প্রস্তাব থেকে নিজেদেরকে প্রত্যাহার করে নিয়েছি। কারণ আমরা মনে করি না যে, মিয়ানমারের বাস্তব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিত এ খসড়া প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে। তবে জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানের নেতৃত্বাধীন কমিশনের সুপারিশ তার সরকার গ্রহণ করবেন বলেও জানান সু চি।

এদিকে, জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের খসড়া প্রস্তাবের প্রতি সমর্থন জানিয়ে মোগেরিনি বলেন, সর্বসম্মতভাবে যে প্রস্তাব পাস হয়েছে তার মাধ্যমে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর চালানো নির্যাতন বিষয়ে সকল সন্দেহ ও অনিশ্চয়তার অবসান ঘটবে।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য