خبرگزاری شبستان

جمعه ۲۴ آذر ۱۳۹۶

الجمعة ٢٧ ربيع الأوّل ١٤٣٩

Friday, December 15, 2017

বিজ্ঞাপন হার

ইমাম মাহদীর(আ.) সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আমাদের দুনিয়া ও আখিরাতের কল্যাণ বয়ে আনে

মাহদাবিয়াত বিভাগ: আমাদের অন্তর যত বেশী ইমাম মাহদীর সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলবে ততবেশী তার উপস্থিতি আমাদের জন্য স্পষ্টতর হবে। আর এটা আমাদের দুনিয়া ও আখিরাতের উন্নতির জন্য খুবই উপকারী।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Monday, May 08, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 26451

১৩ হাজার ১৩ জন ফেরেশতা ইমাম মাহদির (আ.) প্রতীক্ষায় আছে
মাহদাভিয়াত বিভাগ: ইমাম মাহদী(আ.) যখন মহানবীর পতাকা উত্তোলন করবেন তখন তার জন্য দীর্ঘদিন ধরে অপেক্ষায় থাকা ১৩ হাজার ফেরেশতা ইমাম মাহদীর পতাকাতলে এসে তার সংগ্রামের কাজে সহযোগিতা করবেন।

 

মাহদাভিয়াত বিভাগ: ইমাম মাহদী(আ.) যখন মহানবীর পতাকা উত্তোলন করবেন তখন তার জন্য দীর্ঘদিন ধরে অপেক্ষায় থাকা ১৩ হাজার ফেরেশতা ইমাম মাহদীর পতাকাতলে এসে তার সংগ্রামের কাজে সহযোগিতা করবেন।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইমাম জা ’ফর সাদিক (আ.) বলেছেন: আমাদের কায়েম যখন কিয়াম করবেন হযরত আলী (আ.)- এর পোশাক পরিধান করবেন এবং তার পদ্ধতিতেই দেশ পরিচালনা করবেন।

তিনি নিজে কষ্টে জীবন-যাপন করবেন কিন্তু উম্মতের সাথে একজন দয়ালু পিতার ন্যায় আচরণ করবেন। তাদের কল্যাণ ও সৌভাগ্য কামনা করবেন।

ইমাম জাফর সাদিক(আ.) বলেন, আমি ইমাম মাহদীকে দেখতে পাচ্ছি যে তিনি নাজাফ শহরের কাছে পৌছে গেছেন এবং সেকানে হুকুমত করছেন। এরপর তিনি সব জায়গায় ন্যায়পরায়ণতা ছড়িয়ে দিবেন এবং সারা দুনিয়ার মানুষ উপলব্ধি করবে যে ইমাম মাহদী(আ.) তাদের মাঝেই জীবন-যাপন করছেন।

এসময় ১৩ হাজার ১৩জন ফেরেশতা ইমামকে সহযোগিতা করবেন। তারা হলেন সেই সকল ফেরেশতা যারা হযরত নুহের কিস্তিকে সাহায্য করেছিলেন, হযরগ ইব্রাহীমকে আগুন থেকে রক্ষা করেছিলেন এবং হযরত ঈসা(আ.)-কে শুলে চড়িয়ে হত্যা করা থেকে রক্ষা করিছিলেন।

অনুরূপভাবে যে চার হাজার ফেরেশতা সর্বদা ইমাম হুসাইনের মাজার যিয়ারত করছে তারা ইমাম মাহদী ঐ কালজয়ী বিপ্লবে সহযোগিতা করবেন। এই ফেরেশতারা ইমাম হুসাইনকে সাহায্য করার জন্য কারবালায় এসেছিলেন, তারা আবার ফিরে গিয়ে জিহাদ করার অনুমতি নিয়ে আসা রপর দেখলেন ইমাম হুসাইন শাহাদাত বরণ করেছেন। এরপর থেকে তারা সেখানেই রয়ে গেছেন এবং ইমাম মাহদীর আবির্ভাবের পর তাকে সাহায্য করবেন।

627018

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য