خبرگزاری شبستان

سه شنبه ۲۱ آذر ۱۳۹۶

الثلاثاء ٢٤ ربيع الأوّل ١٤٣٩

Tuesday, December 12, 2017

বিজ্ঞাপন হার

ইমাম মাহদীর(আ.) জ্ঞানের প্রকৃতি ও উতস

মাহদাবিয়াত বিভাগ: ইমাম জাফর সাদিক (আ.) বলেছেন: জ্ঞান-বিজ্ঞানের ২৭টি অক্ষর রয়েছে নবীগণ যা এনেছেন তা হচ্ছে মাত্র ২টি অক্ষর এবং জনগণও এই দুই অক্ষরের বেশী কিছু জানে না। যখন আমাদের কায়েম কিয়াম করবে বাকি ২৫টি অক্ষর বের করবেন এবং মানুষের মধ্যে তা প্রচার করবেন। অতঃপর ওই দু’অক্ষরকেও তার সাথে যোগ করে মানুষের মাঝে প্রচার করবেন।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Monday, May 22, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 26575

ইমাম মাহদীর (আ.) বদৌলতে আসমান থেকে বরকত বর্ষিত হয়
মাহদাভিয়্যাত বিভাগ: এ পৃথিবী সৃষ্টির পর থেকেই আল্লাহর পক্ষ থেকে একজন হুজ্জাত বা প্রতিনিধি আল্লাহর জমিনে রয়েছেন। কখনই আল্লাহর এ জমিন তার প্রতিনিধি শুণ্য হতে পারে না। হাদীসের বর্ণনা অনুযায়ী আল্লাহ তার হুজ্জাতের বদৌলতে আসমান থেকে বরকত ও বৃষ্টি বর্ষণ করেন।

ইমাম মাহদীর (আ.) বদৌলতে আসমান থেকে বরকত বর্ষিত হয়

মাহদাভিয়্যাত বিভাগ: এ পৃথিবী সৃষ্টির পর থেকেই আল্লাহর পক্ষ থেকে একজন হুজ্জাত বা প্রতিনিধি আল্লাহর জমিনে রয়েছেন। কখনই আল্লাহর এ জমিন তার প্রতিনিধি শুণ্য হতে পারে না। হাদীসের বর্ণনা অনুযায়ী আল্লাহ তার হুজ্জাতের বদৌলতে আসমান থেকে বরকত ও বৃষ্টি বর্ষণ করেন।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: রাসূলের (সা.) পবিত্র বংশধর তথা আহলে বাইতের (আ.) অন্যতম মাসুম ইমাম হযরত ইমাম মাহদী (আ.); যিনি হলে বর্তমান যুগে থেকেই আল্লাহর পক্ষ থেকে সর্বশেষ হুজ্জাত বা প্রতিনিধি। অবশ্য তিনি মানুষের দৃষ্টির অন্তরালে রয়েছেন এবং আল্লাহর নির্দেশপ্রাপ্ত হলেই আবির্ভূত হবেন।

এ পৃথিবী সৃষ্টির পর থেকেই আল্লাহর পক্ষ থেকে একজন হুজ্জাত বা প্রতিনিধি আল্লাহর জমিনে রয়েছেন। কখনই আল্লাহর এ জমিন তার প্রতিনিধি শুণ্য হতে পারে না। এ সম্পর্কে একাদশতম ইমাম হযরত ইমাম হাসান আসকারী (আ.) থেকে একটি হাদীস বর্ণিত হয়েছে; যা আমরা এখানে পাঠকদের জ্ঞাতার্থে তুলে ধরছি-

ইমাম হাসান আসকারী (আ.) বলেছেন:

إن الله تبارك و تعالى لم يخل الأرض منذ خلق آدم ع و لا يُخلّيها إلى أن تقوم الساعة من خجّة لله على خلقه، به يدفع البلاء عن أهل الأرض، و به ينزل الغيث، و به يخرج بركات الأرض.

 

নিশ্চয়ই আল্লাহ তায়ালা হযরত আদম (আ.) এর সময় থেকে কখনও এ পৃথিবীকে নিজের হুজ্জাত বা প্রতিনিধি শুণ্য রাখেন নি এবং কিয়ামত পর্যন্ত তা কখনও শুণ্য থাকবে না। তিনি তার হুজ্জাতের উপস্থিতির কারণে পৃথিবী থেকে বালা-মুসিবত দূর করেন এবং তার হুজ্জাতের উপস্থিতির কারণেই আসমান থেকে বরকত ও বৃষ্টি নাজিল করেন। (দ্র: কামালুদ্দিন ওয়া তামামুন নে’মাহ, ২য় খণ্ড, পৃ. ৩৮৪)

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য