خبرگزاری شبستان

چهارشنبه ۴ اردیبهشت ۱۳۹۸

الأربعاء ١٩ شعبان ١٤٤٠

Wednesday, April 24, 2019

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Thursday, June 1, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 26662

মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র চ্যালেঞ্জের সমুচিত জবাব দেবে রুশ: পুতিন
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, বিশ্বজুড়ে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা মোতায়েন তার দেশের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ এবং এ অঞ্চলে সামরিক শক্তি বাড়ানোর জবাব দেবে মস্কো।

মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র চ্যালেঞ্জের সমুচিত জবাব দেবে রুশ: পুতিন

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, বিশ্বজুড়ে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা মোতায়েন তার দেশের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ এবং এ অঞ্চলে সামরিক শক্তি বাড়ানোর জবাব দেবে মস্কো।

সেন্টপিটার্সবার্গে আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক ফোরামের সম্মেলনের অবকাশে আজ (বৃহস্পতিবার) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপের সময়  তিনি এসব কথা বলেন। পুতিন পরিষ্কার করে বলেছেন, অন্যরা যখন রাশিয়া ও ইউরোপের সীমান্তে সামরিক শক্তি বাড়াবে তখন মস্কো অলস বসে থাকতে পারে না।

পুতিন সাংবাদিকদের বলেন, “তারা আলাস্কায় ব্যালিস্টিক-বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করেছে এবং এখন দক্ষিণ কোরিয়ায় মোতায়েন করছে। ইউরোপেও একই ঘটনা ঘটবে কিন্তু আমরা কী এসব অসহায়ভাবে দেখব? অবশ্যই না। আমরা এই চ্যালেঞ্জের একনিষ্ঠ জবাব দেব।”

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, দূরপ্রাচ্যে বিশেষ করে কুরিল দ্বীপে রাশিয়া নিজের ইচ্ছায় সামরিক শক্তি বাড়ায় নি বরং আমেরিকার কারণে বাড়াতে বাধ্য হয়েছে। তিনি বলেন, ইরানের ভয় দেখিয়ে ইউরোপে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করেছে আমেরিকা। এখন উত্তর কোরিয়ার পরমাণু শক্তির কথা বলে একই কাজ করছে। যদি উত্তর কোরিয়া আগামী দিনগুলোতে পরমাণু ও রকেট তৈরির কর্মসূচি স্থগিত করে তখনো নতুন অজুহাত তুলে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মেতায়েনের কাজ চলবে; তারা বন্ধ করবে না। এই বিষয়গুলো আমাদের কাছে অনেক বড় উদ্বেগের কারণ এবং আমরা কয়েক বছর ধরে বলে আসছি। মার্কিন এসব কর্মকাণ্ডে বিশ্বের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। কিন্তু পুরো বিশ্ব চুপ এবং কেউ আমাদের কথা শুনছে না।#

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য