خبرگزاری شبستان

سه شنبه ۳ مهر ۱۳۹۷

الثلاثاء ١٥ المحرّم ١٤٤٠

Tuesday, September 25, 2018

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Wednesday, October 04, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27433

রোহিঙ্গা মুসলমানদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে চলমান আন্তর্জাতিক চাপ ও প্রতিক্রিয়া
আন্তর্জাতিক চাপের মুখে রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমার এখন নরম অবস্থানে সরে এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রোহিঙ্গা মুসলমানদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে চলমান আন্তর্জাতিক চাপ ও প্রতিক্রিয়া

 আন্তর্জাতিক চাপের মুখে রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমার এখন নরম অবস্থানে সরে এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ মঙ্গলবার সকালে কক্সবাজার সাগরপাড়ের এক হোটেলে সংবাদ সন্মেলন করে  সেতুমন্ত্রী বলেন, বাধ্য হয়ে বাংলাদেশে মিয়ানমারের মন্ত্রী এলেন, সমাধানের জন্য যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপে কাজ করতে রাজি হয়েছেন। আওয়ামী লীগ নেতা কাদের দাবি করেন, সরকারের সফল কূটনৈতিক তৎপরতায় এটা সম্ভব হয়েছে।

জাতিসংঘকে বাদ দিয়ে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা কতটুকু সফলতার মুখ দেখবে এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে জাতিসংঘকে সঙ্গে নিয়ে আলোচনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

গতকাল সোমবার ঢাকায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলরের দপ্তরের মন্ত্রী এক  বৈঠকে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেবার বিষয়ে  প্রস্তাব দিয়েছে মিয়ানমার। তবে বাংলাদেশ বলছে, ১৯৯২ সাল থেকে এ পর্যন্ত আশ্রয় নেওয়া ৯ লাখের বেশি রোহিঙ্গার সবাইকে ফেরত নিতে হবে।

এদিকে মিয়ানমারের সমাজকল্যাণ, ত্রাণ ও পুনর্বাসনমন্ত্রী উইন মিয়াত আয়ে বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে শরণার্থীদের ফিরিয়ে নেওয়াই এখন তাঁদের প্রধান অগ্রাধিকারের বিষয়। সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় গতকাল জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থার নির্বাহী কমিটির সঙ্গে বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন।

তবে, রোহিঙ্গাদের রাখাইনে ফিরিয়ে নেওয়ার আগে তার নাগরিকত্বের বিষয়টি নিশ্চিত করার কথা সব সময় বলে আসছে মিয়ানমার। এ নিয়ে গতকালের বৈঠকে কথা উঠলে মিয়ানমার জানিয়েছে, পালিয়ে আসা লোকজন তাদের গ্রাম আর পাড়ার নাম বললেই হবে। ওইটুকু ঠিকানাই তাদের রাখাইনের বাসিন্দা হিসেবে প্রমাণ করার জন্য যথেষ্ট।

ওদিকে, রাখাইন রাজ্য ছেড়ে পালিয়ে এসে বাংলাদেশের শরণার্থী আশ্রয়কেন্দ্রে ঠাঁই নেয়া রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার ব্যাপারে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে। যাচাই-বাছাইয়ের পর মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার কথা বলার পরে  মঙ্গলবার শরণার্থীরা এ ধরনের আশঙ্কা প্রকাশ করে।

৬০ বছর বয়সী আমিনা খাতুন বলেন, ‘আমরা যদি সেখানে ফিরে যাই, আবার আমাদের এখানে ফিরে আসতে হবে। তারা যদি আমাদের নাগরিক অধিকার দেয়, তাহলে আমরা যাব; এর আগে যারা ফিরে গেছে, তাদের আবার পালিয়ে আসতে হয়েছে।’

এ প্রসংগে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার সমন্বয়ক  সাইফুল হক রেডিও তেহরানকে বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা বাংলাদেশের জন্য একটি দীর্ঘমেয়াদী সংকট সৃষ্টি করতে পারে। আঞ্চলিক শক্তি ও পরাশক্তিদের সাথে কূটনৈতিক দেনদরবার করে এদেরকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠাতে ব্যর্থ হলে বাংলাদেশের জন্য এটি  রাজনৈতিক সংকটের কারন হবে ।  একই সাথে এখানে আন্তর্জাতিক জঙ্গী গোষ্ঠির নেটওয়ার্ক গড়ে ওঠারও আশংকা রয়েছে।

ওদিকে, এখনো মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গাদের দলে দলে বাংলাদেশে আসা অব্যাহত আছে। গতকালও বাংলাদেশের বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে প্রবেশ করেছে হাজার খানেক রোহিঙ্গা।

শাহপরীর দ্বীপ থেকে টেকনাফ-উখিয়ার দিকে যাওয়ার পথে কয়েকজন রোহিঙ্গা জানিয়েছেন, ভিটেমাটি হারিয়ে কিছু রোহিঙ্গা ওদের কাছে আটক থাকার সময় মিয়ানমার সেনাবাহিনী তাদের ত্রাণ দেয় এবং সাংবাদিকেরা ছবি তোলা ও ভিডিও করার পর অন্য একটি গ্রুপ এসে রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে এসব ত্রাণ কেড়ে নেয় এবং মারধর করে বাংলাদেশের দিকে চলে যেতে বলে। রাস্তায় আবার ওদের পেলে গুলি করে হত্যা করবে বলে হুমকিও দেয়। জীবনের হুমকির মুখে রোহিঙ্গারা ত্রাণ ফেলে দ্রুত পাহাড়ে-জঙ্গলে লুকিয়ে পড়েন এবং রাতের বেলা পথ চলতে চলতে বাংলাদেশে প্রবেশ করছেন।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য