خبرگزاری شبستان

شنبه ۱ اردیبهشت ۱۳۹۷

السبت ٦ شعبان ١٤٣٩

Saturday, April 21, 2018

বিজ্ঞাপন হার

হযরত আব্বাসের আদব ও আখলাক

মাহদাভিয়াত বিভাগ: হযরত আবুল ফজলিল আব্বাস (আলাইসাল্লাম) ছিলেন আমিরুল মুমিনিন হযরত আলী (আ.)'র পুত্র তথা হযরত ইমাম হাসান ও ইমাম হুসাইন (আ.)'র সত ভাই। ২৬ হিজরির চতুর্থ শা'বান জন্মগ্রহণ করেছিলেন ইতিহাসের এই অনন্য ব্যক্তিত্ব। অনেক মহত গুণের অধিকারী ছিলেন বলে তাঁকে বলা হত আবুল ফাজল তথা গুণের আধার। চিরস্মরণীয় ও বরেণ্য এই মহামানবের জীবনের নানা ঘটনার মধ্যে রয়েছে শিক্ষণীয় অনেক দিক।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Friday, November 03, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27641

শিয়ারা চল্লিশার সময় হযরত জয়নাবের প্রতি সহানুভূতি জানায়
মাহদাভিয়াত বিভাগ: শিয়ারা হযরত জয়নাবের সেই আদর্শেই বেড়ে উঠেছে এবং তারা চিরদিন ইমাম হুসাইনের বিপ্লবের বানীকে সবার কানে পৌছে দিবে। বিবি জয়নাব কারবালার পর কুফা থেকে শাম, শাম থেকে মদিনা কারবালার ঘটনাকে সবার কাছে প্রচার করেছেন।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: কারবালার ঘটনার পর রাসূলের আহলে বাইতকে বন্দি করে কুফা ও শামে নিয়ে যাওয়ার পর যখন তাদেরকে আবার মদিনায় ফিরিয়ে নেয়া হয় সেই পথে তারা কারবালায় আসেন এবং ইমাম হুসাইনের চল্লিশার প্রথম যিয়ারতকারী হিসাবে পরিগণিত হন।

ইমাম হাসান আসকারী(আ.) বলেছেন, চল্লিশার দিন ইমাম হুসাইনের যিয়ারত মোস্তাহাব। «ويستحب زيارته عليه السلام فيه وهي زيارة الأربعين، فرُوِيَ عَنْ أَبِي مُحَمَّدٍ الْحَسَنِ بْنِ عَلِيٍّ الْعَسْكَرِيِّ عليه السلام أَنَّهُ قَالَ عَلَامَاتُ الْمُؤْمِنِ خَمْسٌ صَلَاةُ الْإِحْدَى وَالْخَمْسِينَ وَزِيَارَةُ الْأَرْبَعِينَ وَالتَّخَتُّمُ فِي الْيَمِينِ وَتَعْفِيرُ الْجَبِينِ وَالْجَهْرُ بِ بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمنِ الرَّحِيمِ.

মুফাজ্জাল বিন ওমার ইমাম সাদিক(আ.) থেকে বর্ণনা করেছেন: আমরা ইমামের কাছে জানতে চাইলাম আমাদেরকে শিয়াদের বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে পরিচয় দিন। ইমাম বললেন, আমাদের শিয়াদের অনেক বৈশিষ্ট্য রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে দান শীলতা ও ইমাম হুসাইনের চল্লিশার যিয়ারত।

মহাপাপিষ্ঠ ও নরাধম ইয়াজিদের দরবারে উপনীত হলে তার বেয়াদবিপূর্ণ নানা কথা ও বিদ্রূপের জবাবে হযরত জয়নাব (সা.) এক দীর্ঘ ও ঐতিহাসিক ভাষণ দিয়েছিলেন। তেজোদৃপ্ত সেই ভাষণের একাংশে তিনি বলেছিলেন: আমাদের শাসন-কর্তৃত্ব (তোমার হাতে পড়ায়) তুমি মহিমান্বিত আল্লাহর সেই বাণী ভুলে গিয়েছ: 'কাফেররা যেন মনে না করে যে আমরা তাদের যে অবকাশ দান করি, তা নিজেদের জন্য কল্যাণকর। বরং আমরা তো তাদেরকে এ জন্যই অবকাশ দেই যাতে করে তাদের পাপগুলো বাড়তে থাকে এবং তাদের জন্য অপমানজনক শাস্তি অবধারিত।

তিনি ইয়াজিদকে 'সে ব্যক্তির পুত্র যাকে বন্দী করার পর ছেড়ে দেয়া হয়েছিল' বলেও সম্বোধন করেন!(কারণ, আমির মুয়াবিয়া মক্কা বিজয়ের সময় বন্দী হয়েছিল মুসলিম বাহিনীর হাতে, ইসলাম গ্রহণের ঘোষণা দেয়ায় তাকে মুক্তি দেয়া হয়)

হযরত জয়নাব (সা.) তাঁর ঐতিহাসিক সেই ভাষণে পবিত্র নবী বংশের, বিশেষ করে ইমাম হুসাইন (আ.)'র মর্যাদা তুলে ধরার পাশাপাশি ইয়াজিদ বাহিনীর জুলুম ও নৃশংসতাও তুলে ধরেছিলেন।

666869  

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য