خبرگزاری شبستان

شنبه ۱ اردیبهشت ۱۳۹۷

السبت ٦ شعبان ١٤٣٩

Saturday, April 21, 2018

বিজ্ঞাপন হার

কেন ইমাম হুসাইনকে হেদায়েতের আলো এবং মুক্তির তরী বলা হয়?

মাহদাভিয়াত বিভাগ: চতুর্থ হিজরির তৃতীয় শা’বান মানবজাতি ও বিশেষ করে, ইসলামের ইতিহাসের এক অনন্য ও অফুরন্ত খুশির দিন। কারণ, এই দিনে জন্ম নিয়েছিলেন বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.)’র প্রাণপ্রিয় দ্বিতীয় নাতি তথা বেহেশতী নারীদের নেত্রী হযরত ফাতিমা (সা.) ও বিশ্বাসীদের নেতা তথা আমীরুল মুমিনিন হযরত আলী (আ.)’র সুযোগ্য দ্বিতীয় পুত্র এবং ইসলামের চরম দূর্দিনের ত্রাণকর্তা ও শহীদদের নেতা হযরত ইমাম হুসাইন (আ.)।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Saturday, November 11, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27693

আরবাইনের সাথে হজ্বের সাদৃশ্যতা রয়েছে: গবেষক
মায়ারেফ বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিশিষ্ট গবেষক ও চিন্তাবিদ হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিনিন মুহসেন কারাআতি বলেছেন যে, ইমাম হুসাইনের (আ.) শাহাদতের আরবাইন তথা চেহলুমের সাথে হজ্বের বিশেষ সাদৃশ্যতা রয়েছে।

আরবাইনের সাথে হজ্বের সাদৃশ্যতা রয়েছে: গবেষক

 

মায়ারেফ বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিশিষ্ট গবেষক ও চিন্তাবিদ হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিনিন মুহসেন কারাআতি বলেছেন যে, ইমাম হুসাইনের (আ.) শাহাদতের আরবাইন তথা চেহলুমের সাথে হজ্বের বিশেষ সাদৃশ্যতা রয়েছে।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিনিন মুহসেন কারাআতি গতকাল ইমাম হুসাইনের (আ.) পবিত্র চেহলুম উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে বলেন: প্রতি বছর সফর মাসে রাসূলের (সা.) প্রাণপ্রিয় দৌহিত্র ইমাম হুসাইনের (আ.) শোকাবহ চেহলুম উপলক্ষে ইরাকের কারবালা শহরে কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলমান উপস্থিত হয়। আমরা যদি একটু গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করি তাহলে দেখতে পাব প্রতি বছর কারবালা শহরে ইমাম হুসাইনের (আ.) শাহাদতের আরবাইন তথা চেহলুমের সাথে মক্কা নগরীতে প্রতি বছর অনুষ্ঠিত হজ্বের সাথে বিশেষ সাদৃশ্যতা রয়েছে। এ সাদৃশ্যসমূহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- একই সময়ে একই উপলক্ষে লক্ষ লক্ষ ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের উপস্থিতি। অন্যভাবে বলা যায় যে, আরবাইন ও হজ্ব উভয়ই  মুসলিম উম্মাহর ঐক্য ও সংহতির প্রতিক।

তিনি বলেন: হজ্বের মৌসুমে হাজিরা পবিত্র কাবা ঘরকে ঘিরে আল্লাহর ইবাদত ও বন্দেগীতে মগ্ন হয় আর আরবাইনে রাসূলের (সা.) পবিত্র আহলে বাইতের অনুসারীরা কারবালায় ইমাম হুসাইনের (আ.) পবিত্র মাজারকে ঘিরে আল্লাহ ও রাসূল এবং রাসূলের আহলে বাইতের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে। যেভাবে হজ্ব শতাব্দির পর শতাব্দি যাবত প্রতি বছর পালিত হচ্ছে সেভাবে আরবাইনও ৬১ হিজরীতে ইমাম হুসাইনের (আ.) শাহাদতের পর থেকে পালিত হয়ে আসছে।

 

 

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য