خبرگزاری شبستان

شنبه ۱ اردیبهشت ۱۳۹۷

السبت ٦ شعبان ١٤٣٩

Saturday, April 21, 2018

বিজ্ঞাপন হার

কেন ইমাম হুসাইনকে হেদায়েতের আলো এবং মুক্তির তরী বলা হয়?

মাহদাভিয়াত বিভাগ: চতুর্থ হিজরির তৃতীয় শা’বান মানবজাতি ও বিশেষ করে, ইসলামের ইতিহাসের এক অনন্য ও অফুরন্ত খুশির দিন। কারণ, এই দিনে জন্ম নিয়েছিলেন বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.)’র প্রাণপ্রিয় দ্বিতীয় নাতি তথা বেহেশতী নারীদের নেত্রী হযরত ফাতিমা (সা.) ও বিশ্বাসীদের নেতা তথা আমীরুল মুমিনিন হযরত আলী (আ.)’র সুযোগ্য দ্বিতীয় পুত্র এবং ইসলামের চরম দূর্দিনের ত্রাণকর্তা ও শহীদদের নেতা হযরত ইমাম হুসাইন (আ.)।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Sunday, November 12, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27699

দায়েশ-বিরোধী লড়াইয়ে ইরাকের ক্ষতি ১০ হাজার কোটি ডলার'
উগ্র তাকফিরি গোষ্ঠী দায়েশের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ইরাকে ১০ হাজার কোটি ডলার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-এবাদি। দায়েশের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ইরাকি সেনাবাহিনীর পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবী গণবাহিনী পপুলার মোবিলাইজেশন ইউনিটস বা হাশদ্ আশ-শাবি অংশ নিয়েছে।

'দায়েশ-বিরোধী লড়াইয়ে ইরাকের ক্ষতি ১০ হাজার কোটি ডলার'

 

উগ্র তাকফিরি গোষ্ঠী দায়েশের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ইরাকে ১০ হাজার কোটি ডলার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-এবাদি। দায়েশের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ইরাকি সেনাবাহিনীর পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবী গণবাহিনী পপুলার মোবিলাইজেশন ইউনিটস বা হাশদ্ আশ-শাবি অংশ নিয়েছে।

আজ (শনিবার) প্রধানমন্ত্রী এবাদি পবিত্র কারবালা শহরে দেয়া এক বক্তৃতায় বলেন, দায়েশের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে গিয়ে তার দেশ ১০ হাজার কোটি ডলার খরচ করেছে। তবে ইরাকের ভূখণ্ড সন্ত্রাসীমুক্ত করা, দেশের জনগণের মধ্যে ঐক্য প্রতিষ্ঠা এবং যেকোনো হুমকির বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানো- এই তিন ক্ষেত্রে বাগদাদ সফল হয়েছে।  

ইরাকের নিরাপত্তা বাহিনী পশ্চিমাঞ্চলীয় আনবার প্রদেশের রুমানা উপশহরটি দায়েশের কাছ থেকে পুরোপুরি পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে বলে আজই রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত আল-ইরাকিয়া টেলিভিশন চ্যানেল খবর দিয়েছে। একই দিন প্রধানমন্ত্রী এবাদি দায়েশ-বিরোধী লড়াইয়ে দেশটির খরচের কথা তুলে ধরলেন।

এদিকে, হাশদ্ আশ-শাবির সহযোগিতায় ইরাকি সেনাবাহিনী রাজধানী বাগদাদের ৩০০ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে রাওয়া শহর সন্ত্রাসীমুক্ত করতে বড় ধরনের সাড়াশি অভিযান শুরু করেছে। তাকফিরি দায়েশ সন্ত্রাসীরা শহরটিতে ২,৫০০ পরিবারকে পণবন্দী করে রেখেছে বলে গত ৮ নভেম্বর মানবাধিকার বিষয়ক জাতিসংঘ হাইকমিশন বা ওএইচসিএইচআর জানিয়েছিল।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য