خبرگزاری شبستان

جمعه ۲۴ آیان ۱۳۹۸

الجمعة ١٨ ربيع الأوّل ١٤٤١

Friday, November 15, 2019

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Saturday, December 2, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27850

মুসলমানদের ঐক্য ইমাম মাহদীর আবির্ভাবকে ত্বরান্বিত করে
মাহদাভিয়াত বিভাগ: মুসলমানদের মধ্যে অনৈক্য ইমাম মাহদীর আবির্ভাব পিছিয়ে যাওয়ার একটি অন্যতম কারন। যদি সকল মুসলমানরা ঐক্যবদ্ধ থাকত এবং সবাই কোরআনের নির্দেশ অনুসারে «قل لا أَسئَلُكُم عَلَیهِ أَجراً إِلاَّ المَوَدَّةَ فِی القُربى» আহলে বাইতের প্রতি মহব্বত ও ভালবাসা রাখতা তাহলে ইমাম মাহদীর আবির্ভাব ত্বরান্বিত হত।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: মাম মাহদী(আ.) নিজেই বলেছেন: «وَ لَوْ اَنَّ أشياعَنا وَ فَقَّهُمُ اللّه ُ لِطاعَتِهِ، عَلى اجْتِماعٍ مِنَ الْقُلُوبِ فى الْوَفاءِ بِالْعَهْدِ عَلَيْهِمْ، لَما تأخَرَّ عَنْهُمُ الْيُمْنُ بِلِقائنا، وَ لَتَعَجَّلَتْ لَهُمْ السَّعادَةُ بِمُشاهِدَتِنا، عَلى حقِّ الْمَعْرِفَةِ وَ صِدْقِها مِنْهُمْ بِنا، فَما يَحْبِسُنا عَنْهُمْ إلاّ ما يَتَّصِلُ بِنا مِمّا نُكْرِهُهُ؛»

আমাদের শিয়াদের অন্তরসমূহ যদি অঙ্গিকার পূর্ণ করার জন্য একতাবদ্ধ হত তাহলে তাদের সাথে আমার সাক্ষাত একদণ্ডও পিছাত না। বরং তারা খুব শীঘ্রই আমাদেরকে দেখার সৌভাগ্য অর্জন করতে পারত। একমাত্র তাদের গোনাহ ও অন্যায়সমূহই আমাদের থেকে তাদেরকে দূরে সরিয়ে রেখেছে।

হাদিসের ভাষা অনুযায়ী, যারা সর্বদা আল্লাহর ইবাদত বন্দেগি করার মাধ্যমে আমাদের কায়েমের আবির্ভাব ত্বরান্বিত হওয়ার ক্ষেত্র প্রস্তুত করে তারাই আমাদের প্রকৃত অনুসারী।

ইমাম আলী (আ.) ইমাম মাহ্দী (আ.)- এর সাহায্যকারীদের মধ্যে ঐক্য ও সহমর্মিতা সম্পর্কে বলেছেন: তারা প্রত্যেকেই ঐক্যবদ্ধ এবং আন্তরিক।

এই আন্তরিকতা এবং ঐক্যের কারণ হচ্ছে তাদের মধ্যে কোন স্বার্থপরতা ,অহংকার এবং ব্যক্তিগত চাহিদা নেই। তারা সঠিক আক্বীদা নিয়ে এক পতাকার নিচে একই উদ্দেশ্যে সংগ্রাম করে এবং এটাই শত্রুর বিরুদ্ধে তাদের বিজয়ের কারণ।

ইমাম আলী (আ.) বলেছেন: যখন আমাদের কায়েম কিয়াম করবেন ,সবার মন থেকে হিংসা ও বিদ্বেষ দূরিভুত হবে।

তখন হিংসা-বিদ্বেষের আর কোন অজুহাত থাকবে না। কেননা ,তখন সর্বত্র ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠত হবে এবং কারো অধিকার পয়মল হবে না ,সকলেই বিবেকের সাথে চলবে ,কামনা-বাসনার সাথে নয়। সুতরাং হিংসা-বিদ্বেষের আর কোনো পথই অবশিষ্ট থাকবে না। এভাবে প্রত্যেকেই আন্তরিক ও ঐক্যবদ্ধভাবে জীবন-যাপন করবে এবং কোরআনী ভ্রাতৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হবে।

672959

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য