خبرگزاری شبستان

شنبه ۱ اردیبهشت ۱۳۹۷

السبت ٦ شعبان ١٤٣٩

Saturday, April 21, 2018

বিজ্ঞাপন হার

হযরত আব্বাসের আদব ও আখলাক

মাহদাভিয়াত বিভাগ: হযরত আবুল ফজলিল আব্বাস (আলাইসাল্লাম) ছিলেন আমিরুল মুমিনিন হযরত আলী (আ.)'র পুত্র তথা হযরত ইমাম হাসান ও ইমাম হুসাইন (আ.)'র সত ভাই। ২৬ হিজরির চতুর্থ শা'বান জন্মগ্রহণ করেছিলেন ইতিহাসের এই অনন্য ব্যক্তিত্ব। অনেক মহত গুণের অধিকারী ছিলেন বলে তাঁকে বলা হত আবুল ফাজল তথা গুণের আধার। চিরস্মরণীয় ও বরেণ্য এই মহামানবের জীবনের নানা ঘটনার মধ্যে রয়েছে শিক্ষণীয় অনেক দিক।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Monday, December 11, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27917

দানশীল ব্যক্তিরা আল্লাহর বিশেষ অনুগ্রহপ্রাপ্ত
মায়ারেফ বিভাগ: ইরানের খ্যাতনামা মুফাসসেরে কোরআন ও হাদীস গবেষক হযরত আয়াতুল্লাহ মুহাম্মাদি রেই শাহরি বলেছেন যে, দানশীলতা ও বদন্যতা হচ্ছে আল্লাহর পছন্দনীয় বৈশিষ্ট্যসমূহের অন্তর্ভূক্ত। তাই দানশীল ব্যক্তিরা আল্লাহর বিশেষ অনুগ্রহপ্রাপ্ত।

দানশীল ব্যক্তিরা আল্লাহর বিশেষ অনুগ্রহপ্রাপ্ত

 

মায়ারেফ বিভাগ: ইরানের খ্যাতনামা মুফাসসেরে কোরআন ও হাদীস গবেষক হযরত আয়াতুল্লাহ মুহাম্মাদি রেই শাহরি বলেছেন যে, দানশীলতা ও বদন্যতা হচ্ছে আল্লাহর পছন্দনীয় বৈশিষ্ট্যসমূহের অন্তর্ভূক্ত। তাই দানশীল ব্যক্তিরা আল্লাহর বিশেষ অনুগ্রহপ্রাপ্ত।

 

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইরানের খ্যাতনামা মুফাসসেরে কোরআন ও হাদীস গবেষক হযরত আয়াতুল্লাহ মুহাম্মাদি রেই শাহরি আজ সোমবার এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে বলেন: দুনিয়া ও পরকালে সফলতা ও কল্যাণ অর্জনের ক্ষেত্রে কিছু অপরিহার্য বৈশিষ্ট্যের প্রয়োজন রয়েছে; তম্মধ্যে অন্যতম হচ্ছে খোদাভীতি ও পরোপকারী। অর্থাৎ মানুষ একদিকে যেমন আল্লাহকে ভয় করবে; তেমনই অপরদিকে আল্লাহর বান্দাদের প্রতি সদয় ও সহানুভূতিশীল থাকবে; তবেই সে এ দুনিয়া ও পরকালে কল্যাণের অধিকারী হতে পারবে।

তিনি বলেন: একজন প্রকৃত ঈমানদার ব্যক্তি নিশ্চয়ই তাকওয়া ও পরহেজগারীতার অধিকারী হবে। পবিত্র কোরআনের সূরা হুজরাতের ১৫ নং আয়াতের বর্ণনা অনুযায়ী প্রকৃত মু’মিনরা অবশ্যই আল্লাহর প্রেরিত নবী-রাসূল এবং কিয়ামতের প্রতি বিশ্বাসপোষণ করবে। শুধু তাই নয় তারা মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের উদ্দেশ্যে নিয়মিত নামায ও রোজা পালনের পাশাপাশি সমাজের অসহায় ও নিস্ব মানুষের সাহায্যে নিজেদের হাত বাড়িয়ে দেয়।

তিনি তাকওয়া ও আত্মশুদ্ধির বিশেষ ফজিলতের প্রতি ইশারা করে বলেন: মানুষ যখন পার্থিক কোন স্বার্থকে প্রাধন্য না দিয়ে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের উদ্দেশ্যে কোন কার্য সম্পাদন করে, তখন নিশ্চয়ই সে আল্লাহর পক্ষ থেকে উত্তম পুরুস্কার ও প্রতিদানের অধিকারী হতে পারবে।

 

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য