خبرگزاری شبستان

شنبه ۱ اردیبهشت ۱۳۹۷

السبت ٦ شعبان ١٤٣٩

Saturday, April 21, 2018

বিজ্ঞাপন হার

হযরত আব্বাসের আদব ও আখলাক

মাহদাভিয়াত বিভাগ: হযরত আবুল ফজলিল আব্বাস (আলাইসাল্লাম) ছিলেন আমিরুল মুমিনিন হযরত আলী (আ.)'র পুত্র তথা হযরত ইমাম হাসান ও ইমাম হুসাইন (আ.)'র সত ভাই। ২৬ হিজরির চতুর্থ শা'বান জন্মগ্রহণ করেছিলেন ইতিহাসের এই অনন্য ব্যক্তিত্ব। অনেক মহত গুণের অধিকারী ছিলেন বলে তাঁকে বলা হত আবুল ফাজল তথা গুণের আধার। চিরস্মরণীয় ও বরেণ্য এই মহামানবের জীবনের নানা ঘটনার মধ্যে রয়েছে শিক্ষণীয় অনেক দিক।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Tuesday, December 12, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27924

যিয়ারাতে আলে ইয়াসিনের গুরুত্ব
মাহদাবিয়াত বিভাগ: হুজ্জাতুল ইসলাম রাফিয়ী বলেন, সব শিয়াদের জন্য যিয়ারাতে আলে ইয়াসীন পাঠ করা কর্তব্য, কেননা এই দোয়ার মধ্যে শিয়াদের আকিদা বর্ণনা করা হয়েছে।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: তিনি বলেন, একজন প্রকৃত শিয়ার উচিত সর্বদা প্রথম ওয়াক্তে নামাজ আদায় করা। কেননা যিয়ারাতে আলে ইয়াসিনে আমরা ইমাম মাহদীকে নামাজের প্রথম ওয়াক্তে সালাম দেই। সুতরাং যারা ইমামকে নামাজের প্রথম ওয়াক্তে সালাম দেয় তাার যদি প্রথম ওয়াক্তে নামাজ আদায় না করে সেটা খুবই বেমানান।

হুজ্জাতুল ইসলাম রাফিয়ী বলেন: যিয়ারাতে আলে ইয়াসিন হচ্ছে হাদিসে কুদসি এবং আল্লাহর বানী আর এই যিয়ারাতে মহান আল্লাহ ইমাম মাহদীর প্রতি সালাম দিয়েছেন।

এই যিয়ারাতে বর্নিত হয়েছে: «اَلسَّلامُ عَلَيْكَ فى آناءِ لَيْلِكَ وَ اَطْرافِ نَهارِكَ؛ আপনার উপর দিন রাত এবং সর্বদা সালাম বর্সিত হোক। সুতরাং প্রতিটি প্রতীক্ষাকারীর উচিত শুক্রবার বিকালে এই যিয়ারাতটি পাঠ করা।

এই যিয়ারাতে আরো বলা হয়েছে: «السَّلامُ عَلَيْكَ یا الرَّحْمَةُ الْوَاسِعَةُ؛ হে আল্লাহর বিস্তির্ণ রহমত আপনার উপর সালাম।

সুতরাং ইমাম মাহদী(আ.) হচ্ছেন রহমত। কাজেই তাকে কখনোই সহিংসতার মাথে পরিচয় করানো ঠিক হবে না যে, তিনি তলোয়ার দিয়ে সবার মাথো কাটবেন ইত্যাদি। দু:খের বিষয় হল মাওলা আলীকেও এভাবে পরিচয় করানো হয়েছে। যে তিনি বড় যোদ্ধা ছিলেন তলোয়ার চালাতেন ইত্যাদি। অথচ গাদীরের যিয়ারাতে আমরা বলি: আমি সাক্ষ দিচ্ছি যে আপনি হচ্ছেন, দয়ালু পিতা।

এই যিয়ারাতে আমরা মাওলা আলীর ইমামতের সাক্ষ দিয়ে বলি: «أُشْهِدُكَ يَا مَوْلايَ أَنَّ عَلِيّا أَمِيرَ الْمُؤْمِنِينَ حُجَّتُهُ؛  সাক্ষ দিচ্ছি আপনি হচ্ছেন আল্লাহর স্পষ্ট দলিল তথা ইমাম।

এরপর এভাবে এই যিয়ারাতে সকল ইমামের বিষয়ে সাক্ষ দেয়া হয়। তারপর কিয়ামত ও পূনরুত্থান দিবসের বিষয়ে সাক্ষ দেয়া হয়: «أَنَّ الْمَوْتَ حَقٌّ وَ أَنَّ نَاكِرا وَ نَكِيرا حَقٌّ وَ أَشْهَدُ أَنَّ النَّشْرَ حَقٌّ وَ الْبَعْثَ حَقٌّ وَ أَنَّ الصِّرَاطَ حَقٌّ وَ الْمِرْصَادَ حَقٌّ وَ الْمِيزَانَ حَقٌّ وَ الْحَشْرَ حَقٌّ وَ الْحِسَابَ حَقٌّ وَ الْجَنَّةَ وَ النَّارَ حَقٌّ وَ الْوَعْدَ وَ الْوَعِيدَ بِهِمَا حَقٌّ»

674407

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য