خبرگزاری شبستان

جمعه ۲۸ دی ۱۳۹۷

الجمعة ١٢ جمادى الأولى ١٤٤٠

Friday, January 18, 2019

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Thursday, December 14, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27944

ইমাম মাহদীকে(আ.) কিভাবে ডাকতে হবে?
মাহদাবিয়াত বিভাগ: অনেকেই প্রশ্ন করেন যে, ইমাম মাহদী(আ.) অন্তর্ধানে থাকা অবস্থায় তাকে কিভাবে ডাকতে হবে এবং কোন উপাধি ব্যবহার করা উত্তম হবে।

ইমাম মাহদীকে(আ.) কিভাবে ডাকতে হবে?      

মাহদাবিয়াত বিভাগ: অনেকেই প্রশ্ন করেন যে, ইমাম মাহদী(আ.) অন্তর্ধানে থাকা অবস্থায় তাকে কিভাবে ডাকতে হবে এবং কোন উপাধি ব্যবহার করা উত্তম হবে।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: মু’মিনিদে দায়িত্ব হচ্ছে ইমাম মাহদীকে তার উপাধিসমূহ দিয়ে ডাকা যেমন: হুজ্জাত, কায়েম, মাহদী, সাহেবুল আমর, সাহেবুজ্জামান। মহানবীও বলেছেন: ইমাম মাহদীর নাম উচ্চারণ করা ঠিক নয় বরং তাকে মিম হে মিম দাল(م ح م د) বলতে হবে।

তবে শিয়া ওলামাদের কাছে মত পার্থক্য রয়েছে যে, ইমাম মাহদীর নাম অর্থাত (মুহাম্মাদ) বলা যাবে কি যাবে না। অনেকে বলেছেন: নাম উচ্চারণ করা হারাম আবার অনেকে বলেছেন, তাকিয়ার পরিস্থিতিত না থাকলে জায়েজ।

স্বল্প মেয়াদি অন্তর্ধানের সময় তাকিয়ার কারণে ইমাম মাহদীর নাম উচ্চারণ করা নিষেধ ছিল। কিন্তু দীর্ঘ মেয়াদি অন্তর্দানের যুগে তার নাম উচ্চারণ করা জায়েজ।

গ্রন্থ রচনার ক্ষেত্রে ইমাম মাহদীর নাম লেখা জায়েজ। আর বড় দলিল হচ্ছে মহানবীর যুগ থেকে আজ পর্যন্ত ইমাম মাহদীর নাম গ্রন্থে লেখা রয়েছে এবং কেউই তার বিরোধিতা করে নি।

675998

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য