خبرگزاری شبستان

دوشنبه ۴ تیر ۱۳۹۷

الاثنين ١٢ شوّال ١٤٣٩

Monday, June 25, 2018

বিজ্ঞাপন হার

আল্লাহর নিকট সবচেয়ে প্রিয় আমল কি?

মাহদাভিয়্যাত বিভাগ: আল্লাহর নৈকট্য ও সন্তুষ্টি লাভ প্রত্যেক বান্দার চুড়ান্ত লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হওয়া উচিত। আর এ নৈকট্য ও সন্তুষ্টি অর্জন করা তখনই সহজ হবে যখন একজন বান্দা আল্লাহর পছন্দনীয় আমল সম্পাদন করবে।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Tuesday, January 09, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 28132

কিয়ামতের দিন প্রত্যেককে জবাবদিহি করতে হবে
মায়ারেফ বিভাগ: কিয়ামতের দিন প্রত্যেক বান্দাকে (চাই সে নবী হোক, ওলী-আওলিয়া হোক কিংবা সাধারণ ব্যক্তি হোক না কেন) আল্লাহর দরবারে জবাবদিহিতা করতে হবে।

 কিয়ামতের দিন প্রত্যেককে জবাবদিহি করতে হবে

 

মায়ারেফ বিভাগ: কিয়ামতের দিন প্রত্যেক বান্দাকে (চাই সে নবী হোক, ওলী-আওলিয়া হোক কিংবা সাধারণ ব্যক্তি হোক না কেন) আল্লাহর দরবারে জবাবদিহিতা করতে হবে।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিশিষ্ট আলেম ও মুফাসসেরে কোরআন হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন মুহসেন কারাআতি বলেছেন: পবিত্র কোরআনের আয়াত ও রেওয়ায়েতের বর্ণনা অনুযায়ী কিয়ামতের দিন প্রত্যেক ব্যক্তিকে আল্লাহর দরবারে জবাবদিহি করতে হবে। এমনকি নবী, রাসূল ও আওলিয়াদেরও আল্লাহর আদালতের জবাবদিহিতা থেকে রেহাই পাবেন না। অতি ক্ষুদ্র থেকে ক্ষুদ্র বিষয়েও আল্লাহর তার বান্দার নিকট প্রশ্ন করবেন। প্রত্যেককে তার কৃত কর্মের জন্য জবাবদিহিতার পর কিয়ামতের বিচার দিনের আদালত অতিক্রম করতে হবে।

তিনি বলেন: সেদিন মুর্খ ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসা করা হবে- কেন সে জ্ঞান অর্জন করেনি এবং জ্ঞানী ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসা করা হবে- কেন সে নিজের জ্ঞান অজ্ঞাতদের মাঝে বিতরণ করে নি। সেদিন যেমনভাবে নেক ও উত্তম আমল সম্পাদনকারীদের পুরুস্কৃত করা হবে, তেমনভাবে নাফরমানি ও মন্দ কর্মের জন্য শাস্তি ভোগ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন: মানুষ যদি এ পৃথিবীতে কৃত অপরাধে সত্যিকারভাবে অনুতপ্ত হয়ে দয়াময় আল্লাহর নিকট তওবা করে, তাহলে হয়তো সে কিয়ামতের কঠিন আযাব থেকে মুক্তি লাভ করতে পারে। কিন্তু জেনে রাখা প্রয়োজন যে, তওবার সময় মৃত্যুর পূর্ব মূহুর্ত আর মৃত্যু সাধারণত আকস্মিকভাবেই এসে থাকে।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য