خبرگزاری شبستان

چهارشنبه ۲ اسفند ۱۳۹۶

الأربعاء ٦ جمادى الثانية ١٤٣٩

Wednesday, February 21, 2018

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Monday, January 22, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 28239

কোরআনের সতর্কবাণী কেন কাফিরদের উপর কোন প্রভাব ফেলে না?
মায়ারেফ বিভাগ: পবিত্র মানুষের জন্য হেদয়ায়েত ও দিকনির্দেশনা গ্রহণের কিতাব। আমরা যদি এ কিতাবের আদেশাবলী মেনে চলি, তাহলে আমরা দুনিয়া ও পরকালে সফলতা অর্জন করতে পারব। পক্ষান্তরে যারা কোরআনকে উপেক্ষা করবে পরকালে তাদের জন্য কঠিন ও বেদনাদায়ক শাস্তি অপেক্ষা করছে।

কোরআনের সতর্কবাণী কেন কাফিরদের উপর কোন প্রভাব ফেলে না?

মায়ারেফ বিভাগ: পবিত্র মানুষের জন্য হেদয়ায়েত ও দিকনির্দেশনা গ্রহণের কিতাব। আমরা যদি এ কিতাবের আদেশাবলী মেনে চলি, তাহলে আমরা দুনিয়া ও পরকালে সফলতা অর্জন করতে পারব। পক্ষান্তরে যারা কোরআনকে উপেক্ষা করবে পরকালে তাদের জন্য কঠিন ও বেদনাদায়ক শাস্তি অপেক্ষা করছে।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিখ্যাত মুফাসসের ও মনীষী হযরত আয়াতুল্লাহ মুহাম্মাদি রেই শাহরি আজ সোমবার পবিত্র কোরআনের এক তাফসির অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে বলেন: আল্লাহ তায়ালা সূরা বাকারার ৬ ও ৭ নং আয়াতে তার প্রিয় রাসূলকে (সা.) উদ্দেশ্য করে বলেছেন: নিশ্চয় যারা কাফির বা অবিশ্বাস করেছে তাদের (হে রাসূল!) তুমি সতর্ক কর আর না কর, তাদের জন্য উভয়ই সমান; তারা বিশ্বাস করবে না। (৭) আল্লাহ তাদের হৃদয়সমূহ ও কর্ণসমূহের ওপর মোহর অংকিত করে দিয়েছেন (ফলে তারা বিশ্বাস করবে না) এবং তাদের চক্ষুসমূহের ওপর আবরণ রয়েছে, আর তাদের জন্য রয়েছে মহাশাস্তি। এ আয়াতের মাধ্যমে সহজেই বুঝা যায় যে, কাফির ও মুশরিকরা আল্লাহর নাফরমানি ও অবাধ্যতার কারণে হেদয়ায়েত পাওয়ার অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। আর এ কারণে কোরআনের হুশিয়ারি ও সতর্ক তাদের উপর কোন প্রভাব ফেলে না। আর পরকালে এ ধরনের লোকদের ঠিকানা হবে জাহান্নাম।

তিনি বলেন: পবিত্র কোরআনের ভাষায় মানুষ হল দু’ধরনের যথা যারা কোরআনের উপদেশ গ্রহণ করে তারা হল মু’মিন আর যারা কোরআনের উপদেশ উপেক্ষা করে তারা হল কাফির ও মুনাফেক।

 

বিশ্লেষণও নোট :
|
|
|

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য