خبرگزاری شبستان

شنبه ۱ اردیبهشت ۱۳۹۷

السبت ٦ شعبان ١٤٣٩

Saturday, April 21, 2018

বিজ্ঞাপন হার

কেন ইমাম হুসাইনকে হেদায়েতের আলো এবং মুক্তির তরী বলা হয়?

মাহদাভিয়াত বিভাগ: চতুর্থ হিজরির তৃতীয় শা’বান মানবজাতি ও বিশেষ করে, ইসলামের ইতিহাসের এক অনন্য ও অফুরন্ত খুশির দিন। কারণ, এই দিনে জন্ম নিয়েছিলেন বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.)’র প্রাণপ্রিয় দ্বিতীয় নাতি তথা বেহেশতী নারীদের নেত্রী হযরত ফাতিমা (সা.) ও বিশ্বাসীদের নেতা তথা আমীরুল মুমিনিন হযরত আলী (আ.)’র সুযোগ্য দ্বিতীয় পুত্র এবং ইসলামের চরম দূর্দিনের ত্রাণকর্তা ও শহীদদের নেতা হযরত ইমাম হুসাইন (আ.)।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Monday, February 12, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 28404

ইমাম খোমিনির দৃষ্টিতে ধর্মের সাথে রাজনীতির সম্পর্ক
মাহদাভিয়াত বিভাগ: ইমাম খোমিনির দৃষ্টিতের ধর্মের সাথে রাজনীতির সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর এবং রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব হচ্ছে আলেমদের।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: পবিত্র কোরআনের বানী এবং ইসলামের দৃষ্টিভঙ্গিতে পৃথিবীর উপর ক্ষমতাবাণ হবে কেবল সতকর্মশীল ও আল্লাহর সালেহ ও মু’মিনি বান্দারা।

এর আগেও ফকীহদের শাসনের প্রতি ইঙ্গিত থাকলেও ইমাম খোমিনি(রহ.) এই শাসন ব্যবস্থাকে বাস্তবে রূপ দান করেন। প্রকৃত হুকুমতের মালিক হচ্ছেন মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আর তার অনুমতিতে নবীগণ এবং ইমামগণ হুকুমত করে থাকেন।

ইমাম খোমিনি বলেন: আমাদেরকে এমনভাবে বোঝানো হয়েছিল যে, ধর্ম আর রাষ্ট্র দুটো আলাদা জিনিস কিন্তু তা তো নয়ই বরং আমাদের ধর্ম আর রাষ্ট্র তথা রাজনীতি হচ্ছে অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত।

আমরা মালিক আশতারকে লেখা ইমাম আলীর চিঠিটি পড়লেই বুঝতে পারি যে ইসলামের সাথে রাষ্ট্রের সম্পর্ক কতটা গভীর।

আল্লাহ্ তায়ালা এরশাদ করেন : لَقَدْ أَرْ‌سَلْنَا رُ‌سُلَنَا بِالْبَيِّنَاتِ وَأَنزَلْنَا مَعَهُمُ الْكِتَابَ وَالْمِيزَانَ لِيَقُومَ النَّاسُ بِالْقِسْطِ ۖ وَأَنزَلْنَا الْحَدِيدَ فِيهِ بَأْسٌ شَدِيدٌ

অবশ্যই আমরা আমাদের রাসূলদেরকে সুস্পষ্ট নিদর্শনাদিসহ পাঠিয়েছি এবং তাদের সাথে কিতাব ও মানদণ্ড পাঠিয়েছি যাতে লোকেরা ন্যায়নীতির ওপর প্রতিষ্ঠিত থাকে। আর আমরা লৌহ অবতীর্ণ করেছি যাতে রয়েছে প্রচণ্ড শক্তি...। (হাদীদ- ২৫)

আল্লাহ্ তায়ালা অন্যত্র এরশাদ করেন : . وَلِلَّـهِ الْعِزَّةُ وَلِرَ‌سُولِهِ وَلِلْمُؤْمِنِينَ

আর শক্তি তো আল্লাহর এবং তাঁর রাসূলের ও মুমিনদের...।” (সূরা আল মুনাফিকুন- ৮)

আল্লাহ্ তায়ালা আরো এরশাদ করেন : إِذْ جَعَلَ فِيكُمْ أَنبِيَاءَ وَجَعَلَكُم مُّلُوكًا

 (মূসা বনি ইসরাঈলকে বলল :) স্মরণ করো,তিনি তোমাদের মধ্যে নবী বানিয়েছেন এবং তোমাদেরকে রাজ্যাধিপতি বানিয়েছেন...। (মায়েদাহ্- ২০)

অন্য এক আয়াতে এরশাদ হয়েছে : وَلَقَدْ كَتَبْنَا فِي الزَّبُورِ‌ مِن بَعْدِ الذِّكْرِ‌ أَنَّ الْأَرْ‌ضَ يَرِ‌ثُهَا عِبَادِيَ الصَّالِحُونَ

আর আমরা যিক্রের (তাওরাতের) পরে যাবূরে লিখে দিয়েছিলাম যে,আমার উপযুক্ত বান্দারা এ ধরণির উত্তরাধিকারী হবে।(আম্বিয়া - ১০৫)

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য