خبرگزاری شبستان

جمعه ۲۳ آذر ۱۳۹۷

الجمعة ٦ ربيع الثاني ١٤٤٠

Friday, December 14, 2018

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Thursday, February 15, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 28428

কোরআনের দৃষ্টিতে ইমাম মাহদীর আবির্ভাবের শর্ত
মাহদাভিয়াত বিভাগ: পবিত্র কোরআনে বর্ণিত হয়েছে, বলুনঃ সত্য এসেছে এবং মিথ্যা বিলুপ্ত হয়েছে। নিশ্চয় মিথ্যা বিলুপ্ত হওয়ারই ছিল। (ইসরা- ৮১); ইমাম বাকের (আ.) উক্ত আয়াত সম্পর্কে বলেছেন: যখন ইমাম মাহদী (আ.) আবির্ভূত হবেন তখন সকল বাতিল শাষণ ক্ষমতা ধ্বংস হয়ে যাবে। (রওযাতুল কাফি, পৃষ্ঠা ২৮৭)

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইমাম মূসা কাযিম বলেছেন, ইমাম মাহদী (আ.)’এর আবির্ভাবের পরে কিয়ামের সময় সকল দ্বীনের উপরে প্রাধান্যতা অর্জন করবে।

মহান আল্লাহ তায়ালা বলেছেন: وَاللَّهُ مُتِمُّ نُورِهِ

আল্লাহ তাঁর আলোকে পূর্ণরূপে বিকশিত করবেন। (আছ- ছফ -৮)

ইমাম মাহদী (আ.)’এর  বেলায়াত পৃথিবীর সকল ক্ষেত্রে বাস্তবায়িত হবে। (আল মোহাজ্জা, পৃষ্ঠা ৩৮১, উসুলে কাফি, খন্ড ১, পৃষ্ঠা ৪৩২)

পবিত্র কোরআনে আরও বলা হয়েছে: وَنُرِيدُ أَن نَّمُنَّ عَلَى الَّذِينَ اسْتُضْعِفُوا فِي الْأَرْضِ وَنَجْعَلَهُمْ أَئِمَّةً وَنَجْعَلَهُمُ الْوَارِثِينَ

পৃথিবীতে যাদেরকে দূর্বল করা হয়েছিল, আমার ইচ্ছা হল তাদের প্রতি অনুগ্রহ করার, তাদেরকে নেতা করার এবং তাদেরকে পৃথিবীর উত্তরাধিকারী করার। (সূরা কাসাস, আয়াত নং, ৫)

ইমাম বাকের ও সাদিক্ব (আ.) উক্ত আয়াত সম্পর্কে বলেছেন: উক্ত আয়াতটি বিশেষত ইমাম মাহদী (আ.)কে কেন্দ্র করেই নাযিল হয়েছে কেননা তাঁর মাধ্যেমেই স্বৈরাচারী এবং ফেরাউনের ন্যায় দাবীকারী খোদাদের পতন ঘটবে এবং তিনিই হবেন পশ্চিম থেকে পূর্ব পর্যন্ত সারা বিশ্বের শাষক তিনি পৃথিবী থেকে জুলুম অত্যাচারকে দূরীভূত করবেন এবং পৃথিবীকে ন্যায় দ্বারা পূর্ণ করে দিবেন। (তাফসীরে বোরহান, খন্ড ৩, পৃষ্ঠা ২২০, হাদীস নং ১২)

ইমাম সাদিক্ব (আ.) সূরা আসর সম্পর্কে বলেছেন:

(وَالْعَصْرِ) দ্বারা ইমাম মাহদী (আ.)’এর আবির্ভাবকে বুঝানো হয়েছে। (إِنَّ الْإِنسَانَ لَفِي خُسْرٍ) দ্বারা আমাদের শত্রুদেরকে বুঝানো হয়েছে এবং (إِلَّا الَّذِينَ آمَنُوا وَعَمِلُوا الصَّالِحَاتِ) দ্বারা দ্বীনি ভাইদের সাথে সহমর্মিতাপূর্ণ সম্পর্ক রাখাকে বুঝানো হয়েছে। (وَتَوَاصَوْا بِالْحَقِّ) দ্বারা অন্তর্ধানের যুগে সকলে আকায়েদ দূর্বল হয়ে পড়বে তখন সকলকে ধৈর্য এবং দৃঢ়তার সাথে থাকতে বলা হয়েছে। (আল মুহাজ্জা, পৃষ্ঠা ৪৩৬, কামাল উদ্দিন, খন্ড ২ থেকে নেয়া হয়েছে)

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য