خبرگزاری شبستان

جمعه ۲۳ آذر ۱۳۹۷

الجمعة ٦ ربيع الثاني ١٤٤٠

Friday, December 14, 2018

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Monday, March 05, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 28546

ইরান বিরোধী বক্তব্য দেয়ার পর তেহরানে আসলেন ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী
ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ ইভস লা দ্রিয়াঁ আজ তেহরানে এসেছেন। আর্থ-রাজনৈতিক ক্ষেত্রে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বিস্তার, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক নানা বিষয়ে মতবিনিময় এবং ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনের ইরান সফরের পটভূমি তৈরি করা তার তেহরানর সফরের প্রধান উদ্দেশ্য বলে জানা গেছে।

ইরান বিরোধী বক্তব্য দেয়ার পর তেহরানে আসলেন ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

 

ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ ইভস লা দ্রিয়াঁ আজ তেহরানে এসেছেন। আর্থ-রাজনৈতিক ক্ষেত্রে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বিস্তার, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক নানা বিষয়ে মতবিনিময় এবং ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনের ইরান সফরের পটভূমি তৈরি করা তার তেহরানর সফরের প্রধান উদ্দেশ্য বলে জানা গেছে।

ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী তেহরান সফরের প্রাক্কালে দাবি করেছিলেন, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি ফ্রান্স ও তার মিত্র দেশগুলোর জন্য উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। তার ওই বক্তব্যের বিরুদ্ধে সাথে সাথে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে তেহরান। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মুহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ সাংবাদিকদের বলেছেন, পাশ্চাত্যের উচিত ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র সক্ষমতার ব্যাপারে তাদের অবস্থানকে স্পষ্ট করা। জারিফ বলেন, ইউরোপ যদি ইরানের প্রতিরক্ষা শক্তি নিয়ে প্রশ্ন তোলে তাহলে তারা যে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর কাছে কোটি কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রি করছে এবং এ অঞ্চলকে বারুদের গুদামে পরিণত করেছে তার কোনো জবাব আছে কী? 

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ফ্রান্সের সাবেক কর্মকর্তাদের ইরান বিরোধী বক্তব্যের আলোকে বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এসব কথাবার্তায় অবাক হওয়ার কিছু নেই। ইরানের বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক অধ্যাপক আব্দুর রেজা ফারজিরদ বলেছেন, পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলের আরব দেশগুলোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রাখতে ফ্রান্স বাধ্য। কারণ সৌদি আরব, বাহরাইন, কাতারসহ আরো অনেক দেশের কাছে ফ্রান্স অস্ত্রশস্ত্র বিক্রি করে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারিফ তার গতকালের বক্তব্যে কিছু কিছু বিষয়ে ইরানের রেড লাইনের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেছেন, ইউরোপ যদি ইরানের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে মার্কিন অযৌক্তিক দাবি-দাওয়ার ব্যাপারে জবাব পাওয়ার চেষ্টা করে তাহলে তা হবে অনাকাঙ্ক্ষিত ও অবাস্তব।

প্রকৃতপক্ষে, ফ্রান্স সরকার ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতার প্রতি সমর্থন দিলেও ওয়াশিংটনের প্রচারণায় প্রভাবিত হয়ে প্যারিস ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিকে উদ্বেগজনক বলে দাবি করেছে। যদিও ফ্রান্স সরকার নিজেকে স্বাধীন বলে দেখানোর চেষ্টা করছে কিন্তু তারপরও তারা আমেরিকার কথামত চলছে।

এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, ইরান তার প্রতিরক্ষা শক্তিকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যাবে। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি কিছুদিন আগে বলেছেন, আমেরিকা পরমাণু সমঝোতার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে এবং মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের তৎপরতা কিংবা দেশটির প্রতিরক্ষা শক্তি নিয়ে কেউ যদি আমেরিকার সঙ্গে সুর মেলায় তাহলে আমাদের কাছে তা গ্রহণযোগ্য হবে না।

অতীত অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে, ইরানের বিরুদ্ধে হুমকি দিয়ে কিংবা জোর করে কিছু চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ফরাসি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে টেলিফোন সংলাপে বলেছেন, ইউরোপীয় দেশগুলোর উচিত আমেরিকাকে পরমাণু সমঝোতা মেনে চলতে বাধ্য করা।  

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য