خبرگزاری شبستان

یکشنبه ۲ اردیبهشت ۱۳۹۷

الأحد ٧ شعبان ١٤٣٩

Sunday, April 22, 2018

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Thursday, April 12, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 28765

ইমাম কাজিম(আ.) ছিলেন দয়ার সাগর এবং বাবুল হাওয়ায়েজ
মাহদাভিয়াত বিভাগ: ইমাম কাঝিম (আ.) সকল ইমামদের ন্যায় অত্যান্ত দানশীল ও দয়ালু ছিলেণ এবং তার কাছে থেকে কেউ কখনোই খালি হাতে ফিরে যেত না। কিন্তু তিনি নিজে খুব খঠিন জীভন-যাপন করতেন তিনি দামি খাবার খেতেন না। তিনি গম আর যত মিশিয়ে আটা বানিয়ে সেই রুটি খেতেন।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট:  মহানবী হযরত মুহাম্মাদ(সা.) হযরত আলীকে বলেন: মহান আল্লাহ তোমাকে সংযমের মাধ্যমে সৌন্দর্যমনি।ডত করেছেন। অর্থাত তোমার থেকে বড় সংযমি আর কেউ হতে পারবে না। আর মাওলঅ আলীর এই পন্থাকে সকল ইমামগণ অনুসরণ করে চলেছেন।

ইমাম কাজিম(আ.) বলেছেন: মধ্যপন্থঅ অবলম্বন করলে জীবনে বরকত নেমে আসে এবং সম্পদে বরকত হয়। মহানবী(সা.) বলেছেন: اَمَرَنی رَبّی بِحُبِّ المَساکینَ المُسلِمینَ مِنهُم؛ মহান আল্লাহ আমাকে গরিব দুখিদের ভালবাসতে নির্দেশ দিয়েছেন।

বাবুল হাওয়াজে মানে হচ্ছে চাহিদা পূর্ণ হওয়ার দরজা। যেহেতু ইমাম কাজিমের কাছে গেলে সবার চাহিদা পূরণ হত তাই তাকে বাবুল হাওয়ায়েজ বলা হয়।

ইমাম মুসা কাজিম (আ.) বলেছেন- مَن استَوى یَوماهُ فَهُوَ مَغبونٌ و مَن کانَ آخِرُ یَومَیهِ شَرَّهُما فَهُوَ مَلعونٌ و مَن لَم یَعرِفِ الزِّیادَةَ فی نَفسِهِ فَهُوَ فی نُقصانٍ و مَن کانَ إلَى النُّقصانِ فَالمَوتُ خَیرٌ لَهُ مِنَ الحَیاةِ.

অর্থাৎ যে ব্যক্তির পরস্পর দু'টি দিন সম পর্যায়ে হবে; সে ক্ষতিগ্রস্ত।

যে ব্যক্তির চলতি দিনটি পূর্বের দিনের তুলনায় মন্দ হবে; সে আল্লাহর রহমত থেকে বঞ্চিত হবে।

যে ব্যক্তি নিজের মধ্যে অগ্রগতি ও উত্তরণ না দেখবে, সে পতনের দিকে ধাবিত হবে।

আর যে ব্যক্তি পতন ও ক্ষতির দিকে ধাবিত হবে; তার জন্য বেচে থাকার চেয়ে মৃত্যুবরণ শ্রেয়।

সূত্র: বিহারুল আনওয়ার, খন্ড ৭৮তম, পৃ. ৩২৭।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য