خبرگزاری شبستان

یکشنبه ۲ اردیبهشت ۱۳۹۷

الأحد ٧ شعبان ١٤٣٩

Sunday, April 22, 2018

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Sunday, April 15, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 28773

সিরিয়ায় হামলাকারীরা জঘণ্য অপরাধী: রাহবার
রাজনীতি বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা ও ইসলামি বিপ্লবের রাহবার আয়াতুল্লাহ আল উজমা আলী খামেনেয়ী বলেছেন: আমেরিকা, বৃটেন ও ফ্রান্স রাতের আধানে সিরিয়ার উপর নগ্ন হামলা চালিয়ে জঘণ্য অপরাধে লিপ্ত হয়েছে। তাদের অপরাধই তাদের জন্য লজ্জাজনক পরাজয় ডেকে আনবে।

সিরিয়ায় হামলাকারীরা জঘণ্য অপরাধী: রাহবার

 

রাজনীতি বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা ও ইসলামি বিপ্লবের রাহবার আয়াতুল্লাহ আল উজমা আলী খামেনেয়ী বলেছেন: আমেরিকা, বৃটেন ও ফ্রান্স রাতের আধানে সিরিয়ার উপর নগ্ন হামলা চালিয়ে জঘণ্য অপরাধে লিপ্ত হয়েছে। তাদের অপরাধই তাদের জন্য লজ্জাজনক পরাজয় ডেকে আনবে।

গতকাল শনিবার) রাজধানী তেহরানে দেশের পদস্থ কর্মকর্তা ও মুসলিম দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে বৈঠকে ইসলামি বিপ্লবের রাহবার আয়াতুল্লাহ আল উজমা আলী খামেনেয়ী বলেন: ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এবং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন হচ্ছেন অপরাধী।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেছেন, মার্কিন সরকারসহ পশ্চিমা কোনো কোনো সরকার ঔপনিবেশিক ও আন্তর্জাতিক একনায়কতান্ত্রিক নীতিমালার আলোকে কাজ করছে। কিন্তু ডিক্টেটর বা একনায়করা বিশ্বের কোথাও সফল হবে না এবং মার্কিন সরকারও এ অঞ্চলে তার লক্ষ্যগুলো অর্জনে সুনিশ্চিতভাবে ব্যর্থ হবে। 

আয়াতুল্লাহিল উজমা সাইয়্যেদ আলী খামেনেয়ী এ প্রসঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সাম্প্রতিক এক বক্তব্য তুলে ধরেছেন যেখানে ট্রাম্প বলেছেন, আমেরিকা মধ্যপ্রাচ্যে সাত ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করেও কোনো কিছুই পায়নি। যত অর্থই মার্কিন সরকার মধ্যপ্রাচ্যে ব্যয় করুক না কেন ভবিষ্যতেও তারা সেখানে কিছুই পাবে না বলে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা সতর্ক করে দেন।  

তিনি বলেন, মার্কিন সরকারের লক্ষ্য কেবল সিরিয়া, ইরাক ও আফগানিস্তান নয়, আসলে তারা মুসলিম উম্মাহ ও ইসলামের ওপর আঘাত হানার চেষ্টা করছে। তাই মুসলিম সরকারগুলোর উচিত নয় মার্কিন ও আগ্রাসী কোনো কোনো পশ্চিমা সরকারের লক্ষ্যগুলোর সহযোগী হওয়া।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী আরও বলেছেন, সিরিয়া ও পশ্চিম এশিয়ায় ইরানের উপস্থিতির কারণ হল জুলুমের মোকাবেলায় গড়ে-ওঠা প্রতিরোধ সংগ্রামকে সহায়তা দেয়া।  আর  এসব সহায়তা পেয়ে সিরিয় সেনারা সাহসিকতার সঙ্গে সন্ত্রাসীদের পরাজয় ঘটাতে সক্ষম হয়েছে যদিও ঐসব সন্ত্রাসী গোষ্ঠী গড়ে উঠেছে মার্কিন সরকারসহ পশ্চিমাদের ও সৌদি সরকারের মত তাদের অনুচর সরকারগুলোর হাতে।   

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, বিশ্বের যে কোনো অঞ্চলেই কোনো মজলুম যদি সাহায্যের মুখাপেক্ষী হয় ইরান সেখানে হাজির হবে এবং মজলুম ফিলিস্তিনি জাতির প্রতি ইসলামী ইরানের সমর্থনের দর্শনও হচ্ছে এটাই।

তিনি এ প্রসঙ্গে আরও বলেছেন, মজলুম ফিলিস্তিনি জাতি প্রতিরোধ সংগ্রামের সুবাদে আজ শক্তিশালী ফিলিস্তিনে পরিণত হয়েছে এবং নিঃসন্দেহে ইহুদিবাদী দখলদারদের ওপর তাদের বিজয় ঘটবে ও ফিলিস্তিন তার প্রকৃত মালিক ফিলিস্তিনিদের কাছেই ফিরে আসবে।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য