خبرگزاری شبستان

پنج شنبه ۳۱ خرداد ۱۳۹۷

الخميس ٨ شوّال ١٤٣٩

Thursday, June 21, 2018

বিজ্ঞাপন হার

মদীনার ঐতিহাসিক জান্নাতুল বাকী কবরস্থান

স্পেশাল ডেস্ক: মদীনার জান্নাতুল বাকী মুসলিম জাহানের সবচেয়ে পবিত্রতম কবরস্থান। যেখানে শায়িত আছেন ইসলামের নক্ষত্রতূল্য ব্যক্তিত্বগণ। ঐতিহাসিক মদীনায় মসজিদুন্নবী ও রাসূলের (সা.) রওজা মোবারকের পার্শ্বে অবস্থিত এ কবরস্থানটি।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Sunday, May 20, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 28978
মুসলিম দেশগুলোর প্রতি ইরান;
ইহুদিবাদি ইসরাইলকে বয়কট করুন
রাজনীতি বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি ইহুদিবাদী ইসরাইলকে চূড়ান্তভাবে বয়কট এবং তেল আবিবের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য মুসলিম দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি আমেরিকার সঙ্গে সম্পর্ক পুনর্বিবেচনা করারও আহ্বান জানিয়েছেন।

মুসলিম দেশগুলোর প্রতি ইরান;

ইহুদিবাদি ইসরাইলকে বয়কট করুন

 

রাজনীতি বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি ইহুদিবাদী ইসরাইলকে চূড়ান্তভাবে বয়কট এবং তেল আবিবের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য মুসলিম দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি আমেরিকার সঙ্গে সম্পর্ক পুনর্বিবেচনা করারও আহ্বান জানিয়েছেন।

গতকাল (শুক্রবার) তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে অনুষ্ঠিত ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি’র বিশেষ শীর্ষ সম্মেলনে তিনি এ আহ্বান জানান। সম্মেলনে তিনি মুসলিম বিশ্বের প্রতি জোরালো আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ইসরাইলের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রতিরোধ আন্দোলনগুলোকে আপনারা সর্বসম্মত সমর্থন দিন। এ সময় তিনি ফিলিস্তিনিদের ওপর সাম্প্রতিক ইসরাইলি গণহত্যা এবং তেল আবিব থেকে বায়তুল মুকাদ্দাসে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর করার নিন্দা জানান। এ ধরনের শত্রুতামূলক নীতির অবসানে তিনি বেশ কিছু প্রস্তাবও তুলে ধরেন।

প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, “ফিলিস্তিনি জাতিকে সহায়তা ও ট্রাম্পের ধ্বংসাত্মক সিদ্ধান্ত রুখে দিতে আমরা মুসলিম দেশগুলোর সরকার ও স্বাধীনতাকামী জাতিগুলোকে আমেরিকার সঙ্গে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানাই; একইসঙ্গে ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন এবং তাদের সমস্ত পণ্য বয়কট করার অনুরোধ করব।”

এছাড়া, বায়তুল মুকাদ্দাসে বেআইনিভাবে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর এবং গাজা উপত্যকায় ইসরাইলের সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি নিয়ে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের বৈঠক আহ্বানের ব্যবস্থা করা, প্রয়োজনীয় কৌশল নির্ধারণের জন্য ওআইসি’র বিশেষজ্ঞ গ্রুপ প্রতিষ্ঠা, ফিলিস্তিনিদের জন্য মানবিক ত্রাণ সহায়তা দেয়া, ইসরাইলের পরমাণু অস্ত্র নিস্ক্রিয় করার ব্যবস্থা নেয়া এবং আন্তর্জাতিক কুদ্‌স দিবসকে ইসলামি ক্যালেন্ডারে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব দেন প্রেসিডেন্ট রুহানি।  

ইহুদিবাদী ইসরাইলের ৭০ বছরের হত্যা ও অপরাধযজ্ঞের কথা উল্লেখ করে ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, “যখন লাখ লাখ ফিলিস্তিনি মৌলিক মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে তখন ইহুদিবাদীরা চাতুরতার সঙ্গে বর্ণবাদী সরকারকে গণতান্ত্রিক সরকার বলে এবং নিজেদের ধর্মীয় উগ্রবাদীতাকে ধর্মনিরপেক্ষতা হিসেবে তুলে ধরছে। সবচেয়ে দুঃখজনক হচ্ছে বহু পশ্চিমা দেশ দখলদার ইসরাইলের আগ্রাসনকে ন্যায্য বলে মনে করছে। এ অবস্থায় ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলনগুলোর প্রতি সর্বসম্মত সমর্থন দেয়ার জন্য মুসলিম বিশ্বের প্রতি আহ্বান জানান প্রেসিডেন্ট রুহানি। তিনি বলেন, যদি ইহুদিবাদী ইসরাইল গণতান্ত্রিক ও উন্নত দেশগুলোর মাধ্যমে ঘেরাও হয়ে পড়ে এবং ঐক্যবদ্ধ মুসলিম উম্মাহকে মোকাবেলা করতে হয় তাহলে তারা এত সহজে ও নিরাপদে সব অপরাধ করতে পারবে না।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য