خبرگزاری شبستان

پنج شنبه ۲۴ آیان ۱۳۹۷

الخميس ٧ ربيع الأوّل ١٤٤٠

Thursday, November 15, 2018

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Sunday, July 08, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 29128

সমাজে ইসলামি সংস্কৃতির বিস্তার সাধান আমাদের ঈমানি দায়িত্ব
মসজিদ বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের মসজিদ বিষয়ক সাংস্কৃতিক পরিষদসমূহের কেন্দ্রীয় শুরার প্রধান হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন ডা: আরজানি বলেছেন যে, একজন মুসলমান হিসেবে সামাজে ইসলামি সংস্কৃতির বিস্তার সাধান আমাদের প্রত্যেকের ঈমানি দায়িত্ব।

সমাজে ইসলামি সংস্কৃতির বিস্তার সাধান আমাদের ঈমানি দায়িত্ব

 

মসজিদ বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের মসজিদ বিষয়ক সাংস্কৃতিক পরিষদসমূহের কেন্দ্রীয় শুরার প্রধান হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন ডা: আরজানি বলেছেন যে,  একজন মুসলমান হিসেবে সামাজে ইসলামি সংস্কৃতির বিস্তার সাধান আমাদের প্রত্যেকের ঈমানি দায়িত্ব।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইরানের মসজিদ বিষয়ক সাংস্কৃতিক পরিষদসমূহের কেন্দ্রীয় শুরার প্রধান হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন ডা: আরজানি গতকাল মঙ্গলবার এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে বলেন: সমাজে ইসলামি সংস্কৃতির ব্যাপক প্রচার ও প্রসার এবং পশ্চিমা সাংস্কৃতির আগ্রাসন মোকাবেলার উদ্দেশ্যে বিগত দু’দশক পূর্বে মসজিদ বিষয়ক সাংস্কৃতিক পরিষদসমূহ গঠিত। বর্তমানে ইরানের প্রায় ৩২ হাজার মসজিদে মসজিদ বিষয়ক সাংস্কৃতিক পরিষদ সক্রিয় রয়েছে। প্রতি দিন এ সব পরিষদের ধর্মীয় কাযক্রমে লাখ লাখ কিশোর ও কিশোরী অংশগ্রহণ করছে। তাই এ পরিষদ বর্তমানে একটি বিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়েছে।

তিনি বলেন: ইরানের ৩০টি প্রদেশে ছড়িয়ে থাকা হাজার হাজার মসজিদ বিষয়ক সাংস্কৃতিক পরিষদসমূহে প্রায় দুই লাখের বেশি যুবক ও যুবতি সক্রিয় সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। তারা এ সব পরিষদের তত্বাবধানে সক্রিয় থেকে ইসলামি শিক্ষা ও সংস্কৃতির চর্চার পাশাপাশি মসজিদসমূহের নানাবিধ ধর্মীয় কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করছে, যা তাদের নৈতিক শিক্ষার উন্নতিতে বিশেষ সহায়ক ভূমিকা রাখছে।

হযরত হুজ্জাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন ডা: আরজানি বর্তমান সময়ে পশ্চিমা সংস্কৃতির কুফল থেকে যুবসমাজকে রক্ষায় ইসলামি সংস্কৃতির বিস্তার সাধনের উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করে বলেন: যদি আমরা যুবকদের মাঝে ইসলামি শিক্ষা ও সংস্কৃতির বিস্তার না ঘটায় তাহলে তারা দিন দিন নৈতির অবক্ষয়ের দিকে ধাবিত হবে।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য