خبرگزاری شبستان

دوشنبه ۲۵ آذر ۱۳۹۸

الاثنين ١٩ ربيع الثاني ١٤٤١

Monday, December 16, 2019

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Saturday, July 21, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 29199

ইসরাইলকে ইহুদি রাষ্ট্র ঘোষণায় ইরানের তীব্র নিন্দা
রাজনীতি বিভাগ: ইহুদিবাদী ইসরাইলকে ‘ইহুদি জাতির রাষ্ট্র’ ঘোষণা দিয়ে ইসরাইলি সংসদ যে আইন পাস করেছে তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ইরান। তেহরান বলেছে, ফিলিস্তিনি জাতির প্রতিরোধ আন্দোলন ও প্রচেষ্টায় একদিন তাদের মাতৃভূমির ওপর ইহুদিবাদীদের দখখলদারিত্বের অবসান হবে।

ইসরাইলকে ইহুদি রাষ্ট্র ঘোষণায় ইরানের তীব্র নিন্দা

 

রাজনীতি বিভাগ: ইহুদিবাদী ইসরাইলকে ‘ইহুদি জাতির রাষ্ট্র’ ঘোষণা দিয়ে ইসরাইলি সংসদ যে আইন পাস করেছে তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ইরান। তেহরান বলেছে, ফিলিস্তিনি জাতির প্রতিরোধ আন্দোলন ও প্রচেষ্টায় একদিন তাদের মাতৃভূমির ওপর ইহুদিবাদীদের দখখলদারিত্বের অবসান হবে।

দখলদার ইসরাইলের সংসদ 'নেসেট' গত বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) গোটা অধিকৃত ফিলিস্তিনকে ‘ইহুদি জাতির রাষ্ট্র’ ঘোষণা দিয়ে এ ঘোষণাকে আইন হিসেবে অনুমোদন করে। চরম বর্ণবাদী এ আইন অনুযায়ী গোটা ফিলিস্তিন কেবল ইহুদিবাদীদের দেশ হওয়ায় সেখানে ফিলিস্তিনিদের কোনো নাগরিক ও মানবিক অধিকার থাকবে না। এ ছাড়া হিব্রু ভাষাই হবে সেখানকার একমাত্র রাষ্ট্র-ভাষা।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি নেসেটের এই বর্ণবাদী আইনের প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, ফিলিস্তিনি জাতির ওপর গণহত্যা চালিয়ে এবং তাদেরকে তাদের মাতৃভূমি থেকে বহিষ্কার করে অবৈধ ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এটি যে একটি দখলদার ও বর্ণবাদী রাষ্ট্র তা নেসেটে এই আইন পাসের মাধ্যমে আরেকবার প্রমাণিত হয়েছে।

কাসেমি বলেন, ইহুদিবাদী সরকারের সব অন্যায় ও অপরাধের প্রতি মার্কিন সরকারের অকুণ্ঠ সমর্থন এবং তেল আবিবের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করার লক্ষ্যে কিছু আরব দেশের প্রচেষ্টা এই দখলদার শক্তিকে আগের চেয়ে বেশি উদ্ধত ও ধৃষ্ট করে তুলেছে। এর ফলে ইসরাইল এখন আগের চেয়ে আরো বেশি নৃশংসভাবে ফিলিস্তিনিদের ওপর গণহত্যা চালানোর সাহস পাবে যা মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলবে।

ইসরাইলি পার্লামেন্টে পাস হওয়া আইনে মুসলমানদের প্রথম কিবলার শহর বায়তুল মুকাদ্দাসকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণার পাশাপাশি ফিলিস্তিনে ইহুদিবাদীদের জন্য নতুন নতুন  অবৈধ বসতি গড়ে তোলাকে ‘জাতীয় মূল্যবোধ’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এ আইনে পুরনো অবৈধ ইসরাইলি-বসতিগুলোর বিস্তার ও উন্নয়নের পাশাপাশি কথিত নতুন 'ইহুদি-বসতি' গড়ে তোলার কথাও বলা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো ইসরাইলের এই নতুন বর্ণবাদী তাণ্ডব ও উপনিবেশবাদী দাম্ভিকতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এসব সংস্থা ইসরাইলের এ পদক্ষেপকে আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করেছে।

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য