خبرگزاری شبستان

پنج شنبه ۲ اسفند ۱۳۹۷

الخميس ١٦ جمادى الثانية ١٤٤٠

Thursday, February 21, 2019

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Tuesday, July 31, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 29271

সিরিয়া থেকে ৩৬ নারী ও শিশুকে অপহরণ করেছে দায়েশ
উগ্র তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসআইএল বা দায়েশ সিরিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় সুওয়াইদা প্রদেশ থেকে জাতিগত দ্রুজ সম্প্রদায়ের ৩৬ জন নারী ও শিশুকে ধরে নিয়ে গেছে। গত সপ্তাহে এসব নারী ও শিশুকে অপহরণ করা হয় বলে সিরিয়ার কথিত মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে।

সিরিয়া থেকে ৩৬ নারী ও শিশুকে অপহরণ করেছে দায়েশ

 

 উগ্র তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসআইএল বা দায়েশ সিরিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় সুওয়াইদা প্রদেশ থেকে জাতিগত দ্রুজ সম্প্রদায়ের ৩৬ জন নারী ও শিশুকে ধরে নিয়ে গেছে। গত সপ্তাহে এসব নারী ও শিশুকে অপহরণ করা হয় বলে সিরিয়ার কথিত মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে।

সংস্থাটির প্রধান রামি আব্দের রহমান সোমবার বলেছেন, গত ২৫ জুলাই ২০ নারী ও ১৬ শিশুকে ধরে নিয়ে গেছে দায়েশ সন্ত্রাসীরা।  এদের মধ্যে চার নারী জঙ্গিদের কবল থেকে পালিয়ে নিজ এলাকায় ফিরে এসেছে বলে তিনি জানান।

লন্ডনভিত্তিক অবজারভেটরির প্রধান আরো জানান, অপহৃত দুই জন নিহত হয়েছেন এবং এখনো ৩০ জন দায়েশের হাতে আটক রয়েছে।

গত বছরের শেষ দিকে সিরিয়ায় নিজেদের নিয়ন্ত্রিত সব শহর থেকে পালিয়ে যায় দায়েশ সন্ত্রাসীরা। এরপর গত ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে দায়েশের নৃশংসতা বন্ধ ছিল। কিন্তু গত বুধবার তারা সিরিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে দ্রুজ সম্প্রদায়ের কয়েকটি গ্রামে হানা দিয়ে অন্তত ২৫০ ব্যক্তিকে হত্যা করে।

নৃশংস ওই হামলার সময় এই ৩৬ নারী ও শিশুকে জঙ্গিরা ধরে নিয়ে যায় বলে আব্দের রহমান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এখনো সেখানকার ১৭ পুরুষ নিখোঁজ রয়েছেন। দায়েশ জঙ্গিরা তাদেরকে হত্যা করেছে নাকি ধরে নিয়ে গেছে তা এখনো স্পষ্ট নয়।

 

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য