خبرگزاری شبستان

جمعه ۶ اردیبهشت ۱۳۹۸

الجمعة ٢١ شعبان ١٤٤٠

Friday, April 26, 2019

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Tuesday, July 31, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 29272

ইরানের সঙ্গে নিঃশর্ত আলোচনায় বসতে চাই: ডোনাল্ড ট্রাম্প
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি তার ইরানি সমকক্ষ হাসান রুহানির সঙ্গে কোনো পূর্বশর্ত ছাড়াই আলোচনায় বসতে চান। এ আলোচনা ‘যখনই ইরানিরা চাইবে তখনই হতে পারে’ বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

ইরানের সঙ্গে নিঃশর্ত আলোচনায় বসতে চাই: ডোনাল্ড ট্রাম্প

 

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি তার ইরানি সমকক্ষ হাসান রুহানির সঙ্গে কোনো পূর্বশর্ত ছাড়াই আলোচনায় বসতে চান। এ আলোচনা ‘যখনই ইরানিরা চাইবে তখনই হতে পারে’ বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

সোমবার হোয়াইট হাউজে ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুসপে কোন্টে’র সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বেশ কয়েকবার একই কথার পুনরাবৃত্তি করেন ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, তিনি ‘কোনো পূর্বশর্ত ছাড়াই’ ইরানিদের সঙ্গে ‘অবশ্যই সাক্ষাৎ’ করতে চান।

ট্রাম্প বলেন, “এটা আমেরিকার জন্য ভালো, তাদের (ইরানের) জন্য ভালো, আমাদের জন্য ভালো এবং গোটা বিশ্বের জন্য ভালো। কোনো পূর্বশর্ত নেই। যদি তারা আলোচনায় বসতে চায় তাহলে আমি আলোচনায় বসব।”

ট্রাম্পের সর্বশেষ এ বক্তব্য তার আগের কার্যকলাপ ও হুমকির সঙ্গে সম্পূর্ণ সাংঘর্ষিক। তিনি গত সপ্তাহে ইরানকে ‘নজিরবিহীন শিক্ষা’ দেয়ার হুমকি দিয়েছেন। এর আগে গত মে মাসে পাশ্চাত্যের সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা বা জেসিপিওএ থেকে আমেরিকাকে বের করে নিয়ে তেহরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করেছেন।

ইতালির প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেন, “আমি বিশ্বাস করি শেষ পর্যন্ত সম্ভবত তারা আমাদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চাইবে।” তিনি বলেন, “এবং তারা যখন চাইবে তখনই আমি তাদের সঙ্গে আলোচনা বসতে রাজি। এটি আমাদের শক্তিমত্তা বা দুর্বলতা প্রকাশ করা নয়। আমি মনে করি এই মুহূর্তে এটিই একটি উপযুক্ত কাজ।”

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি এখনো ট্রাম্পের সর্বশেষ এ প্রস্তাবের ব্যাপারে কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি। তবে তার অন্যতম উপদেষ্টা হামিদ আবুতালেবি এক টুইটার বার্তায় বলেছেন, আলোচনায় বসতে হলে আমেরিকাকে সবার আগে পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসতে হবে।

আবুতালেবির টুইটার বার্তায় বলা হয়েছে, “ইরান ও আমেরিকার মধ্যে আলোচনার কণ্টকাকীর্ণ পথ পরিষ্কার করতে চাইলে আমেরিকাকে ইরানি জাতির অধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে হবে, শত্রুতা কমাতে হবে এবং পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসতে হবে।”

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য