خبرگزاری شبستان

سه شنبه ۲۲ آیان ۱۳۹۷

الثلاثاء ٥ ربيع الأوّل ١٤٤٠

Tuesday, November 13, 2018

বিজ্ঞাপন হার

ইরাকের রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় বসরা শহরের ইরানি কনস্যুলেটে দুর্বৃত্তদের হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ (শনিবার) ভোরে তেহরানে নিযুক্ত ইরাকি রাষ্ট্রদূতকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। এ সময় ইরানি কনস্যুলেটের নিরাপত্তা রক্ষার ব্যাপারে ইরাকি নিরাপত্তা কর্মীদের অবহেলার প্রতিবাদ জানানো হয়।

নির্বাচিত সংবাদ

মতামতজরিপ  :   Thursday, August 23, 2018 নির্বাচিত সংবাদ : 29426

ইমাম মাহদী (আ.) কি প্রতি বছর হজে শরিক হন?
মাহদাভিয়্যাত বিভাগ: ইমাম মাহদী (আ.) হলেন রাসূলের (সা.) পবিত্র আহলে বাইতের সর্বশেষ পুরুষ এবং ইমামতিধারার সর্বশেষ মাসুম ইমাম। যিনি আল্লাহর পক্ষ থেকে মানুষের হেদায়েত ও দিকনির্দেশনার দায়িত্বে নিয়োজিত।

ইমাম মাহদী (আ.) কি প্রতি বছর হজে শরিক হন?

 

মাহদাভিয়্যাত বিভাগ: ইমাম মাহদী (আ.) হলেন রাসূলের (সা.) পবিত্র আহলে বাইতের সর্বশেষ পুরুষ এবং ইমামতিধারার সর্বশেষ মাসুম ইমাম। যিনি আল্লাহর পক্ষ থেকে মানুষের হেদায়েত ও দিকনির্দেশনার দায়িত্বে নিয়োজিত।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইমাম মাহদী (আ.) প্রতি শিয়া ও সুন্নী উভয় মাযহাবের অনুসারীরা আকিদাপোষণ করে। কিন্তু এক্ষেত্রে পার্থক্য হচ্ছে শিয়া মাযহাবের অনুসারীরা বিশ্বাস করে যে, এ মহান ইমাম (আ.) জীবিত আছেন এবং আল্লাহর নির্দেশে তিনি মানুষের চক্ষুর অন্তরালে আছেন। আর যখন আল্লাহ আবার আদেশ জারি করবেন তখন তিনি আবির্ভূত হবেন এবং প্রকাশ্যে মানুষের হেদায়েত ও দিকনির্দেশার গুরুদায়িত্ব পালন করবেন। আর এ আকিদা ইতিহাস ও যুক্তির দিক থেকে বাস্তবসম্মত। কিন্তু সুন্নী মাযহাবের অনুসারীরা ধারণা করেন যে, ইমাম মাহদীর এখনও জন্ম হয় নি এবং শেষ জামানায় তার জন্ম হবে।

পবিত্র হজ্বের মৌসুমে প্রায়ই ইমাম মাহদী সম্পর্কে একটি প্রশ্ন উত্থাপিত হয়ে থাকে, আর তা হচ্ছে- ইমাম মাহদী কি প্রতি বছর হজ্বের মৌসুমে মক্কা ও মদীনায় উপস্থিত হয়ে থাকেন। আর এ প্রশ্নের উত্তর খুজতে হলে নিচের কয়েকটি হাদীসের প্রতি মনোযোগ আবস্যক-

ইমাম জাফর সাদীক (আ.) বলেন: জনগণ যুগের ইমাম প্রতি বছর হজে শরিক হন। তিনি মানুষকে প্রত্যক্ষ করেন কিন্তু কেউ তাকে দেখতে পায় না। সূত্র: উসূলে কাফী, খণ্ড ২য়, পৃ. ১৫০

ইমাম মাহদীর (আ.) অন্যতম খাস প্রতিনিধ মুহাম্মাদ বিন উসমান উমরি বলেন: আল্লাহর শপথ! ইমাম মাহদী (আ.) প্রতি বছর হজে অংশগ্রহণ করেন। তিনি সবাইকে দেখেন এবং তাদের পরিচয়ও জানেন। আর মানুষরাও তাকে দেখে কিন্তু তার পরিচয় জানে না। সূত্র: মান লা ইয়াহজারহুল ফাকীহ, ২য় খন্ড, পৃ. ৫২০

মন্তব্য

বইপরিচিতি  :
 ভিডিও সংবাদ:
অন্যান্যলিংক :
আমাদের সম্পর্কে

মন্তব্য